advertisement
আপনি দেখছেন

মিরপুর টেস্টের দুদিন শেষে বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের ২৬৫ রানের জবাব দিতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে স্বাগতিকদের স্কোর ২৪০/৩। সেঞ্চুরির সম্ভাবনা নিয়ে অপরাজিত আছেন মুমিনুল হক সৌরভ (৭৯*)। ৩২ রানে অপরাজিত থাকা মুশফিকুর রহিমও উইকেটে সেট। দারুণ এক হাফ সেঞ্চুরি পেয়েছেন তরুণ নাজমুল হোসেন শান্ত। অনেকদিন পর টেস্টে এতো ভালো একটা দিন কাটালো বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। রহস্য কী? নাজমুল হোসেন শান্ত জানালেন, ব্যাটিংয়ে নামার আগে সবাই মিলে পরিকল্পনা করেছেন সবাই। তারই সুফল পেয়েছেন মাঠে।

najmul hossain shanto dabs one to point

দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে শান্ত বললেন, ‘ব্যাটিংয়ে নামার আগে আমরা টিম মিটিং করেছি। আমাদের ব্যাটিংয়ে নির্দিষ্ট একটা প্ল্যান আছে। উইকেট ভালো। আমরা সে হিসেবেই ব্যাটিং করেছি।’

বাংলাদেশের ইনিংসের শুরুতেই সাইফ হাসান ফিরে গেলে তিনে নেমে আজ দারুণ ব্যাটিং করেছেন তরুণ শান্ত। ১৩৯ বলে ৭১ রান করে ফেরার আগ পর্যন্ত যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী দেখা গেছে ২১ বছর বয়সী ক্রিকেটারকে। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে ধুঁকতে থাকা শান্ত হঠাৎ কীভাবে এতো আত্মবিশ্বাসী?

তরুণ ক্রিকেটার বললেন, ‘আগে যখন খেলছি একটা ভয় কাজ করতো। খারাপ খেললে বাদ পড়ে যাব, এমন চিন্তা হতো। কিন্তু এখন আমি মানসিকভাবে এই রকম কিছু চিন্তা করছি না। ভালো খেলি খারাপ খেলি ওটা আমার অংশ না টিমে থাকবো, না থাকবো। চেষ্টা করছি নিয়মিত ভালো খেলার। ইতিবাচক দিক হলো এখন যে কোচিং স্টাফ আছে তারা আনক বেশি আত্মবিশ্বাস দিচ্ছে, অনেক বেশি। এগুলো (বাদ পড়া) নিয়ে চিন্তা করতে নিষেধ করছে। বারবার বলছে তুমি অনেক বেশি সুযোগ পাবা শুধু খেলায় মনোযোগ দাও।’

ক্যারিয়ার সেরা ৭১ রানের ইনিংসটিকে আজ ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিতে পরিণত করার সুযোগও ছিল শান্তর। কাজে লাগাতে পারেননি বলে আফসোসও হচ্ছে তরুণ ক্রিকেটারের। বললেন, ‘অবশ্যই সুযোগ ছিল। যেহেতু উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য ভালো ছিল। তবে আউটটা বাদ দিলে আমি ভালো ব্যাটিং করেছি। তারপরও বলব যেহেতু উইকেট ভালো ছিল তাই ইনিংসটি বড় করা উচিত ছিল।’