advertisement
আপনি দেখছেন

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন লিগে খেলে গেছেন বিশ্বের অনেক কিংবদন্তি ক্রিকেটার। সাম্প্রতিক কয়েক বছরে বিদেশি অনেক ক্রিকেটারই কুঁড়ি থেকে ফুল হয়ে ফুটছেন ঐতিহ্যবাহী এই প্রতিযোগিতা থেকে। এসবকিছুই অতীত হয়ে যাচ্ছে। প্রথমবারের মতো ঢাকা লিগ হতে চলেছে বিদেশি ক্রিকেটারদের অংশগ্রহণ ছাড়াই!

logo dhaka premier league 2018

আগামী ১৫ মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে ঢাকা লিগের নতুন মৌসুমের খেলা। তার আগে আগামী ৩, ৪ ও ৫ মার্চ হবে খেলোয়াড়দের দলবদল। এখানেও বড় একটা পরিবর্তনের পথে হাঁটল টুর্নামেন্টের আয়োজক ঢাকার ক্লাব ক্রিকেটের পরিচালনাকারী সংগঠন সিসিডিএম।

দুই মৌসুম পর আয়োজকরা ফিরে যাচ্ছেন উন্মুক্ত পদ্ধতিতে। গেল বছরের শেষ দিকে ক্রিকেটারদের আন্দোলনের ফসল বলা যায় এই পরিবর্তনকে। দলবদল প্রক্রিয়া প্রথম দুইদিন হবে ঢাকার সিসিডিএম এর অফিসে। শেষ দিন সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নির্ধারণ করা হবে ক্রিকেটারদের ঠিকানা।

নব্বই দশক থেকে ঢাকা লিগের দলগুলোর ভারসাম্য ঠিক রাখতে ক্রিকেটারদের পুল এবং পুলের কোটা নির্ধারিত ছিল। কিন্তু উন্মুক্ত দল-বদলে ফেরায় এবার থাকছে না তা-ও। তাতে করে আবাহনীর মতো বড়বড় ক্লাবগুলো শক্তিশালী দল গুছিয়ে রাজত্ব কায়েম করতে পারে।

ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্য দুই প্রতিযোগিতা জাতীয় লিগ এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ হয় স্থানীয় খেলোয়াড়দের নিয়েই। এবার পাল্টে যাচ্ছে ধারাটা। নতুন মোড়কের এই টুর্নামেন্টে দেখা যাবে না থারাঙ্গা-রয়-বিহারিদের। প্রতিযোগিতায় নতুত্ব আছে আরো। বাড়ানো হচ্ছে ভেন্যু।

ঢাকা বিভাগের বাইরে চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজারেও আয়োজন করা হবে ঢাকা লিগের ম্যাচ। টুর্নামেন্টে ফরমেটেও আসছে পরিবর্তন। রবিন লিগ রাউন্ডে ১২টি দল খেলবে ওয়ানডে সংস্করণে। সুপার লিগে ওঠা সেরা ছয় দল খেলবে টি-টোয়েন্টি সংস্করণে। আজ বিসিবি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেন সিসিডিএম চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ।