advertisement
আপনি দেখছেন

মিরপুর টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে পাত্তাই পেল না জিম্বাবুয়ে। চার দিনেই আফ্রিকার দেশটিকে ইনিংস ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। অথচ কদিন আগেই রাওয়ালপিন্ডিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে নাস্তানাবুদ হয়ে এলো বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে দাঁড়াতেই না পেরে ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে মুমিনুল হকের দল।

nazmul hasan papon mushfiqur rahim

অবশ্য মিরপুরের বাংলাদেশ আর রাওয়ালপিন্ডির বাংলাদেশের মধ্যে বড় একটা পার্থক্য ছিল। রাওয়ালপিন্ডিতে ছিলেন না বাংলাদেশ টেস্ট দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। মিরপুরে সেই মুশফিক দুর্দান্ত এক ডাবল সেঞ্চুরি করে বাংলাদেশকে বিশাল সংগ্রহ এনে দিয়েছেন। সেই কারণেই কিনা মুশফিককে পরবর্তী পাকিস্তান সফরে যাওয়ার তাগদা দিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

নিরাপত্তা ইস্যুতে চিন্তিত হয়ে মুশফিককে পাকিস্তানে যেতে দিতে চায়নি তার পরিবার। সিরিজ শুরুর আগে লিখিতভাবে তা জানিয়ে বোর্ডের কাছ থেকে ছুটি চেয়ে নেন মুশফিক। বিসিবি সভাপতি বললেন, ফর্মে থাকা মুশফিকের উচিত সেই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে পাকিস্তান সফরে যাওয়া।

পাপন বলেন, ‘আমরা আশা করছি ও (মুশফিক) যাবে। শুধু সে না প্রতিটি চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড়ের যাওয়া উচিত। এটা আমরা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি। দেশের কথাও চিন্তা করতে হবে, সবসময় নিজের কথা চিন্তা করলে হবে না। প্রত্যেকের কাছেই নিজের কথা পরিবারের কথা গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু দেশটা তার চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘সতীর্থদের কাছ থেকে শুনতে পারে, আমাদের কাছ থেকে শুনতে পারে (পাকিস্তানে নিরাপত্তার কথা) তাহলে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হতে পারে। পাকিস্তান একটা ভিন্ন ইস্যু। আগে নিজে থেকেই মুশফিক বলেছে (না যাওয়ার কথা), কাউকে আমরা জোর করিনি। আমি মনে করি সবার সাথে কথাবার্তা বলে ওর যাওয়া উচিত।’

উল্লেখ্য, অল্প দিনের ব্যবধানে দুবার পাকিস্তান সফরে করে টি-টোয়েন্টি সিরিজ ও একটি টেস্ট খেলে এসেছে বাংলাদেশ দল। এপ্রিলে আরেক দফা পাকিস্তান সফরে গিয়ে একটি টেস্ট ও একটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে বাংলাদেশের।