advertisement
আপনি দেখছেন

নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। এবারের বিশ্বকাপটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে তাদের দেশেই। দুর্দান্ত ফর্মেও আছে স্বাগতিকরা। টুর্নামেন্টের হট ফেভারিটও তারা। এই অজিদের বিপক্ষে অতীতে কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা ছিল না বাংলাদেশের। সব মিলিয়ে মনে করা হচ্ছিল, অজিদের বিপক্ষে কঠিন পরীক্ষাতেই পড়তে হবে বাংলাদেশ দলকে। হলোও তাই, বিশ্বকাপে নিজেদের দুই নম্বর ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আজ ৮৬ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।

alyssa healy sweeps the ball away

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রানের হিসেবে এটা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ হারের রেকর্ড। এই রেকর্ডে বাংলাদেশের উপরে আছে কেবল থাইল্যান্ড। গতকাল ইংল্যান্ড নারী দলের বিপক্ষে ৯৮ রানে হেরেছিল থাইল্যান্ডের মেয়েরা।

এদিকে, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এই হারে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় অনেকটা নিশ্চিত হয়ে গেলো বাংলাদেশের। গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ১৮ রানে হারে সালমা খাতুনের দল।

প্রথমে ব্যাটিং করে দুই ওপেনারের দুর্দান্ত ইনিংসের ওপর ভর করে রানের পাহাড় গড়ে অস্ট্রেলিয়া। নির্ধারিত ২০ ওভারে একটি মাত্র উইকেট হারিয়ে ১৮৯ রান তোলে স্বাগতিকরা।

জবাব দিতে নেমে শুরুটা একদমই ভালো হয়নি বাংলাদেশের। শেষটা হলো একেবারেই তালগোলে। বাংলাদেশ তাদের প্রথম তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়েছে মাত্র ২৬ রানের মধ্যে। শেষ দিকে মাত্র ৭ রানের ব্যবধানে আউট হয়েছেন পাঁচজন। এমন বেহাল দশার পর নির্ধারিত ২০ ওভারে নয় উইকেটে ১০৩ রানের বেশি তুলতে পারেনি বাংলাদেশ।

মাঝখানে ৩৫ বলে ৩৬ রান করা ফারজানা হক বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। তিনি ছাড়া দুই অঙ্কের কোটা স্পর্শ করতে পেরেছেন মাত্র তিনজন, নিগার সুলতানা (১৯), রুমানা আহমেদ (১৩) ও শামিমা সুলতানা। অস্ট্রেলিয়ার পেসার মেগান শুট বেশি কাঁপিয়েছে বাংলাদেশকে। ৪ ওভারে ২১ রান খরচায় তিন উইকেট তুলে নিয়েছেন মেগান।

এর আগে অস্ট্রেলিয়ার ১৮৯ রানের সংগ্রহে বড় অবদান দুই ওপেনার অ্যালিসা হিলি ও বেথ মুনির। ১৭ ওভার টিকে ছিলো এ জুটি, আসে ১৫১ রান। ৫৩ বলে ১০ চার ৩ ছয়ে ৮৩ রান করে ফিরেছেন হিলি। ৫৮ বলে ৯ চারে ৮১ রান করে শেষ অবদি অপরাজিত থাকেন বেথ মুনি। তিনে নামা অ্যাশলে গ্রাডনার মাত্র ৯ বলে ২২ রান করে অজিদের সংগ্রহটাকে দুইশ’র কাছে নিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন।

sheikh mujib 2020