advertisement
আপনি দেখছেন

আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর মাশরাফি বিন মর্তুজার অধিনায়কত্ব অধ্যায়ের সমাপ্তি হতে যাচ্ছে বলে জানিয়ে রেখেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। অধিনায়কত্বের শেষ সিরিজে সংবাদ সম্মেলনে হাজির হয়ে হঠাৎ মেজাজ হারালেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক।

mashrafe press conference

মাশরাফির অধিনায়কত্ব এখনো প্রশ্নাতীত। তবে তার পারফরম্যান্স নিয়ে বেশ কথা উঠছে। বল হাতে আগের মতো পারফর্ম করতে পারছেন না বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের সফলতম অধিনায়ক।

অনেকেই মনে করছেন, অধিনায়ক না হলে শুধু পারফরমার হিসেবে একাদশে জায়গা হতো না মাশরাফির। তাকে অধিনায়কত্বের পদ থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নাকি সেই কারণেই। বিষয়গুলো কি লজ্জার নয়? আত্মসম্মানে আঘাত লাগে না মাশরাফির?

সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের পর মেজাজি হয়ে উঠলেন মাশরাফি। বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘আমি কি চুরি করি মাঠে, আমি কি চোর? খেলার সঙ্গে লজ্জা, আত্মসম্মান... এসব আসলে মেলাতে পারি না আমি। এতো জায়গায় এতো চুরি হচ্ছে, এতো চামারি হচ্ছে তাদের লজ্জা নাই? উইকেট আমি নাই পেতে পারি, তাতে আমার সমালোচনা হবে সেটা স্বাভাবিক। কিন্তু আমাকে লজ্জা পেতে হবে।’

মাশরাফি বলেন, ‘আমি পরিনি আমাকে বাদ দিয়ে দিবে, এটা তো সাধারণ বিষয়। আমার লজ্জা, আত্মসম্মানবোধ এসব আমি কার সঙ্গে দেখাতে যাব? আমি তো বাংলাদেশের হয়েই খেলছি। আমি কী বাংলাদেশের মানুষদের বিপক্ষের মানুষ? যে কেউই পারফর্ম নাই করতে পারে। আমি উইকেট পাচ্ছি না বলে সমালোচনা হতে পারে, সারাবিশ্বেই হচ্ছে। কিন্তু কথাটা যখন আত্মসম্মানের, লজ্জার তখন আমার প্রশ্ন থাকে। আমার সমালোচনা করুক সমস্যা নাই। কিন্তু আত্মসম্মান নিয়ে প্রশ্ন তুললে তা হতে পারে না। আমি কী আত্মসম্মান বিসর্জন দিয়ে ক্রিকেট খেলতে এসেছি নাকি। নাকি অন্য দেশের হয়ে খেলেছি বা চুটি করেছি।’