advertisement
আপনি দেখছেন

পাকিস্তানে দুই দফা সফরে বাংলাদেশ দলে ছিলেন না মুশফিকুর রহিম। অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার মাঠে ফিরেছেন জিম্বাবুয়ে একমাত্র টেস্ট সিরিজ দিয়ে। মাঠে ফিরেই প্রত্যাবর্তনটা রাঙিয়ে দিয়েছেন তিনি। তুলে নিয়েছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ডাবল সেঞ্চুরি।

mushfiqur rahim 2020 1

দ্বিশতক হাঁকানো মুশফিককে আউট করতে পারেননি জিম্বাবুয়ের বোলার। আজ অনুশীলনে তার উইকেট নিতে ব্যর্থ হলেন বাংলাদেশের পেসাররাও। বরং নেটে ব্যাট হাতে আবু জায়েদ রাহি, আল আমিন হোসেন ও শফিউল ইসলামকে দীর্ঘ সময় ভোগালেন মুশফিক। একটা পর্যায়ে বাংলাদেশের পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসনকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন তিনি।

হাসতে হাসতে ক্যারিবীয় কোচকে উদ্দেশ্য করে মুশি বলেছেন, ‘আপনার বোলারদের বলুন, পারলে যেন আমাকে আউট করে।’ মুশফিক নেটে কেমন ব্যাটিং করেছেন সেটা তার কথাতেই পরিষ্কার। নেটের পেছনে দাঁড়িয়ে শিষ্যের ব্যাটিং উপভোগ করছিলেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

একটা পর্যায়ে দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ পিঠ চাপড়ে দিলেন মুশফিকের। তিনি বলেছেন, ‘দারুণ শট মুশি। দুর্দান্ত পজিশন।’ শফিউলকে দুর্দান্ত একটা কাভার ড্রাইভ খেলার পরই গুরুর জোর প্রশংসা পেয়েছেন মুশফিক। তিন পেসারের মধ্যে একমাত্র এই শফিউলই মুশফিককে কিছুটা যা চাপে রেখেছেন।

এদিন নেটে বোলিং অনুশীলনে ভালোই সুইং পেয়েছেন শফিউল। প্রায়সব বলে লাইন ও লেংথও ছিল ভালো। নেটের পেছন থেকে বারবার চিৎকার করে এই পেসারের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করছিলেন ডমিঙ্গো। তাতে মুশির ব্যাট যেন আরো চড়াও হয়ে উঠল। এরই ধারাবাহিকতায় আল আমিনকে উড়িয়ে মেরেছেন তিনি।

যেটাকে আল আমিন ক্যাচ আউট বলে দাবি করেছেন। কিন্তু মুশফিক তার আবেদন নাকচ করে দিলেন, ‘আরে ধুর, কীসের আউট। ফিল্ডারের কাছ থেকে দূরে থাকবে। দুই রান তো হবেই।’