advertisement
আপনি দেখছেন

৩৪ ম্যাচ পর সেঞ্চুরিবন্ধ্যত্ব ঘুচিয়েছেন লিটন দাস। আজ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীশতক। ১২৬ রানের ইনিংসটা লিটনের ক্যারিয়ার সেরা। তবে প্রথমটাকেই তিনি এগিয়ে রাখছেন। নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়া লিটনের ব্যাটিং দেখে ভক্তদের অনেকেরই মনে হয়েছে ডাবল সেঞ্চুরি করার সুযোগ পেতে পারেন তিনি। সুযোগ পাননি লিটন। তিনি অবশ্য দ্বিশতকের স্বপ্নও দেখেন না।

liton das 2020

কেন দেখেন না তা নিজেই বললেন, ‘এরকম (ডাবল সেঞ্চুরির) কোনো চিন্তাই ছিল না। স্বপ্ন দেখা তো ভালো। ভাই, সেঞ্চুরি করতে পারছি না, ডাবল সেঞ্চুরি কোত্থেকে করব? বাস্তবতায় থাকা উচিত। যে মানুষ আমি ৫০-৬০ করতে পারি না, ১০০ করতে পারি না, সে মানুষ কীভাবে ডাবল সেঞ্চুরি করব?’

ইনিংসটা শেষ করতে না পারায় আক্ষেপ কিছুটা অবশ্য ছিল লিটনের। তবে বাস্তবতা মানছেন তিনি। তার মতে ক্রিকেট হতাশার খেলা। লিটন বলেছেন, ‘আমি মনে করি, ক্রিকেট সম্পূর্ণ হতাশার খেলা। এক ম্যাচ রান করব, আরেক ম্যাচে রান পাব না। রান করলেও চিন্তা হয় যে আরও ১০ রান বেশি করতে পারতাম। সেদিক থেকে আক্ষেপ আছে।’

লিটন আরো বলেছেন, ‘আমার মনে হয় উঠে (সাজঘরে ফিরে যাওয়া) যাওয়ার সিদ্ধান্ত আমার জন্য সঠিক ছিল। সামনে আরও ম্যাচ আছে। পাশাপাশি ওখানে আমি ব্যাট করলে হয়তো ৫ বলে ১০ করতাম। কিন্তু আউটের সম্ভাবনা বেশি থাকত।’

সাম্প্রতিক কয়েক বছরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের রেকর্ড বরাবরই উজ্জ্বল। ব্যতিক্রম লিটন। এই দলটার বিরুদ্ধে আগে দুটি সিরিজ খেললেও ব্যাট হাতে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। তার কাছে প্রতিপক্ষ হিসেবে কেমন জিম্বাবুয়ে?

এমন প্রশ্নে লিটনের উত্তর, ‘জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আমি আগে খুব বাজে খেলেছি। তাদের মূল দুই অস্ত্র জার্ভিস ও চাতারা এবার নেই। সেদিক থেকে তারা একটু পিছিয়ে। তারপরও আমার মনে হয় তাদের দল খারাপ নয়, ভালো দল। মূল ব্যাপার হলো, প্রতিদিনই শূন্য থেকে শুরু করতে হবে। আমাদের ভালো খেলে তাদের খারাপ খেলাতে হবে। দলীয় পারফরম্যান্স দিয়েই। আমরা যদি অতি আত্মবিশ্বাসী থাকি, আমরাই ব্যাকফুটে চলে যাব।‘

sheikh mujib 2020