advertisement
আপনি দেখছেন

ওয়ানডে ক্রিকেটে সবশেষ তামিম ইকবালের ব্যাট হেসেছে বিশ্বকাপের মাঝপথে। কাটিয়েছিলেন পাঁচ ম্যাচের হাফসেঞ্চুরি খরা। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ৬২ রান করা টাইগার ওপেনার অর্ধশতক পাচ্ছেন না ফের সাত ম্যাচ হয়ে গেছে। গেল জানুয়ারিতে অবশ্য পাকিস্তানের বিরুদ্ধে শেষ দুটি টি-টোয়েন্টিতে রানের দেখা দেখা পেয়েছেন। কিন্তু তামিমের ব্যাটিং ঠিক টি-টোয়েন্টি সুলভ ছিল না।

neil mackenzie tamim

ওয়ানডে ক্রিকেটেও একই অবস্থা। পরিস্থিতির দাবি মিটিয়ে খেলতে পারছেন না। পাওয়ার প্লে-তে নিজেকে গুটিয়ে রাখছেন দেশ সেরা ওপেনার। এক সময়কার আগ্রাসী তামিম এখন অনেকটাই শান্ত প্রকৃতির। তামিমের সমালোচনা যতটা না রানখরা নিয়ে তারচেয়েও বেশি তার ব্যাটিংয়ের ধরণ নিয়ে। এই তো গতকাল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের রানোৎসবের ম্যাচে ৪৩ বলে ২৪ রান করেছেন তামিম!

তার সঙ্গী লিটন দাস অবশ্য বিধ্বংসী সেঞ্চুরি করে এসেছেন। প্রায় দেড় বছর পর শতকের দেখা পেয়েছেন ডানহাতি ওপেনার। তামিম শেষবার তিন অংক ছুঁয়েছেন তারও দুই মাস আগে। এর মাঝে দুবার আশির ঘরে আউট হয়েছেন তিনি। যেখানে স্ট্রাইক রেট আশির নিচে। সাম্প্রতিককালে তার স্ট্রাইক রেট হয়ে উঠেছে আরো নিম্নমুখী। সবমিলিয়ে তামিম যেন অচেনা।

এর মাঝে ইনজুরিতে ছিলেন তামিম। মাঠে ফিরেছেন; ফিটনেস নিয়ে কাজ করেছেন। বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জির মতে তার বর্তমান ফিটনেস অতীতের চেয়ে সেরা। ফিট তামিম তবু কেন খোলস ছেড়ে বেড় হতে পারছেন না? উত্তরটা ব্যাটিং কোচ নিজেও জানেন না। তবে তামিমকে নিয়ে মোটেও উদ্বিগ্ন নন ম্যাকেঞ্জি। দক্ষিণ আফ্রিকান কোচের বিশ্বাস দ্রুতই ফিরে আসবে তামিম।

আজ সিলেটে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন ফাঁকে গণমাধ্যমকে তিনি বলছেন, ‘আমার মনে হয় না তামিম প্রতিদিন ব্যর্থ হচ্ছে। সে সবেমাত্র ফিরেছে। আপনি তার রেকর্ড দেখুন। সে বিশ্বমানের একজন খেলোয়াড়। আমরা জানি তিনি বাংলাদেশের হয়ে কত রান করেছেন। এর মাঝে কিছুদিন সে খেলার বাইরে ছিল। এখন ভালো একটা সুযোগের অপেক্ষায় আছে। সে রানের জন্য ক্ষুধার্থ; অনুশীলনে দারুণ করছে। তামিমকে নিয়ে আমি মোটেও উদ্বিগ্ন নই। তবে এটা ঠিক আপনি সবসময় সেঞ্চুরি পাবেন না।‘

sheikh mujib 2020