advertisement
আপনি দেখছেন

অনেক দিন ধরেই কাঠগড়ায় তামিম ইকবাল। তা যতটানা রানখরার জন্য, তারচেয়ে বেশি ব্যাটিংয়ের ধরনের কারণে। একটা খোলসের মধ্যে এতদিন নিজেকে আটকে রেখেছিলেন তামিম। অবশেষে বৃত্ত ভেঙে বেরিয়ে এলেন বাঁ-হাতি ওপেনার।

 tamim acknowledges the crowd after his century

তামিম জ্বলে উঠলেন ব্যাট হাতে; ১০৯ দিন পর করেছেন অর্ধশতক। ওয়ানডে ক্রিকেটে এটা তার দ্বাদশ সেঞ্চুরি। বাংলাদেশের আর কোনো ব্যাটসম্যানের শতকের দুই অংক ছোঁয়ার রেকর্ড নেই। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সেঞ্চুরিয়ান সাকিব আল হাসানের আছে নয়টি।

আজ সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তামিমের হাফসেঞ্চুরি এসেছে স্বভাবসুলভ ব্যাটিংয়ে; ৪২ বলে। ইনিংস লম্বা করার পথে পুল, ফ্লিক, স্ট্রেট ড্রাইভ, কাভার ড্রাইভ- সব শটই খেলেছেন তিনি। বহুল প্রত্যাশিত সেঞ্চুরি করেছেন ১০৬ বলে। শেষ পর্যন্ত তামিম থেমেছেন ব্যক্তিগত সংগ্রহ দেড় শ ছাড়ানোর পর; ১৫৮ রানে। বাংলাদেশের দুটো দেড় শই কেবল তামিমের। ইমরুল কায়েস ও মুশফিকুর রহিমের ১৪৪ রানের ইনিংস আছে।

কাল নিজেকে আরো একবার ছাড়িয়ে গেছেন একবার। ওয়ানডে ক্রিকেটে এটাই তার সর্বোচ্চ সংগ্রহ। তার আগের সেরা ইনিংসটা ছিল ১৫৪ রান। ১১ বছর আগে বুলাওয়েতে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষেই ক্যারিয়ার সেরা ব্যাটিং করেছিলেন তামিম। এবার সেই দলটার বিরুদ্ধে নতুন করে রেকর্ডটা নিজের করে নিয়েছেন বাঁ-হাতি ওপেনার। তার প্রথম এবং শেষ- দুটো সেঞ্চুরিই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

দুটো ইনিংসই বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানদের পক্ষে সর্বোচ্চ। আজকের ইনিংসটা খেলার পথে তামিম ছুঁয়েছেন ওয়ানডেতে সাত হাজার রানের গণ্ডি। এই সংস্করণে কোনো বাংলাদেশির এই মাইফলক ছোঁয়ার নজির নেই। রাজসিক ইনিংসটা খেলার পথে তামিম ভেঙেছেন ক্রিস গেইলের রেকর্ড। ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সর্বোচ্চ রান এখন তামিমের।

গতকাল গণমাধ্যমের সামনে তামিমের বাজে সময় নিয়ে কথা বলতে হয়েছে ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জিকে। উত্তরে তিনি জানান বাঁ-হাতি ওপেনারের প্রতি আস্থার কথা। ম্যাকেঞ্জির চাওয়া ছিল পাওয়ার-প্লেতে দুটি বাউন্ডারি। কিন্তু তামিম গুরুর প্রত্যাশা ছাড়িয়ে গেছেন বহুদূর। এতদিন ধরে ধুঁকতে থাকা তামিম এদিন বাউন্ডারির বন্যা বইয়ে দিলেন! শুরুর দশ ওভারে চার মারলেন ১০টি!

ইনিংসে মোট বাউন্ডারি কুড়িটি। এক ম্যাচে বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানের এটা সর্বোচ্চ বাউন্ডারির রেকর্ড। তিনি ভেঙেছেন শাহরিয়ার নাফিসের ১৭ বাউন্ডারির রেকর্ড। চার-ছক্কা ও রানের বন্যা বইয়ে দেওয়ার পথে প্রথম বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে তামিম ছুঁয়েছেন সাত হাজার রানের মাইফলক।

তামিম সেঞ্চুরির পর বাধভাঙা উচ্ছ্বাস করেননি। বোধহয় করার দরকারও পড়েনি। তার ব্যাটই কথা বলেছে আজ। ইনিংস শেষে তামিম বলেছেন, ‘টিম ম্যানেজমেন্টকে ধন্যবাদ। বিশেষ করে নিল ম্যাকেঞ্জি তিনি আমার ওপর আস্থা রেখেছেন।’