advertisement
আপনি দেখছেন

বিয়ের পরই বদলে গেছেন লিটন দাস। ব্যাট হাতে রানের ফোয়ারা ছড়াচ্ছেন বিধ্বংসী এই ওপেনার। ঠিক যেন তার পদাঙ্ক অনুকরণ করলেন সৌম্য সরকার। বিয়ের দুই সপ্তাহ না পেরুতেই ব্যাট হাতে ঝড় তুলেন এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। সোমবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে তো ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসটাই খেলে ফেললেন তিনি!

soumya gives it a good whack

কালকের আগে কুড়ি ওভারের ক্রিকেট ৪৮ ম্যাচে তার হাফসেঞ্চুরি ছিল মাত্র একটি। এদিন দ্বিতীয় অর্ধশতকটি পেয়ে গেলেন সৌম্য। জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ৩২ বলে ৬২ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলে পেয়েছেন ম্যাচ সেরার স্বীকৃতি। ব্যাট হাতে নামার আগে পেয়েছেন আরো একটা পুরস্কার। বাদ পড়ার পর বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ঢুকে পড়েছেন তিনি।

প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু দাবি করেন, চুক্তি থেকে ভুলে বাদ দেওয়া হয়েছিল সৌম্যকে। তিনি জানান, সাদা বলের ক্রিকেটের জন্য চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারকে। তবে বাদ পড়ার অস্বস্তি নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামেননি সৌম্য। কিন্তু চুক্তি নয়, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাইশ গজে আসার আগে তার স্নায়ুচাপের কারণ ছিল বিয়ের পর প্রথম ব্যাটিং নিয়ে!

ম্যাচ শেষে এ নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে সৌম্য বলেছেন, ‘হ্যাঁ খেলার আগে জেনেছি (কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ঠাঁই পাওয়া)।' আর সত্যি বলতে ওভাবে চিন্তা করিনি। চিন্তায়  ছিলাম, বিয়ের পর প্রথম ম্যাচ খেলতে যাচ্ছি…। তাই ব্যাটিংয়ে বেশি মনোযোগ দিয়েছি।’ কথাগুলো লাজুক হাসি নিয়েই বলছিলেন বাঁ-হাতি বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান।

হাতের মেয়েদির রঙ এখনা শুকায়নি। অথচ বিয়ে পরবর্তী পরিবর্তন লক্ষ্য করছেন তিনি, ‘(বিয়ে করেছি) কয়দিনই হলো মাত্র। একটা ম্যাচ খেললাম। পরিবর্তন যে হবে এটা বোঝা যাচ্ছে।‘ সৌম্য নিজের ব্যাটিংয়ের ধরনেও এনেছেন পরিবর্তন। জানালেন আগে শুধু স্ট্রাইক রেট মাথায় নিয়ে খেলতেন তিনি, এখন স্ট্রাইক রেট এবং বলের গতিবিধি বুঝেই ব্যাটিং শুরু করেছেন।