advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস আতঙ্ক সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। সেটির প্রভাব পড়েছে সব ধরনের ক্রীড়াক্ষেত্রেও। এর আগে ইউরোপিয়ান ফুটবলে অনেক ম্যাচ স্থগিত করা হয়েছে। হ্যান্ডশেক বন্ধ ছিল বেশকিছু ম্যাচে। করোনাভাইরাস আতঙ্ক ছড়িয়েছে ক্রিকেটেও। এবার ভারতে এসে হ্যান্ডশেক করতে চান না দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটাররা।

1indvssa

ভারত মাটিতে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে প্রোটিয়ারা। সিরিজ শুরু হবে ১২ মার্চ। ধর্মশালায় অনুষ্ঠিত ম্যাচের আগে প্রোটিয়া কোচ মার্ক বাউচার বলেন, 'ছেলেদের মধ্যে করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক রয়েছে। তাই ভারতে আমরা চেষ্টা করব হ্যান্ডশেক না করার। এ ব্যাপারে ক্রিকেটারদের মতামতকে গুরুত্ব দিতে হবে। আশা করি, স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে তারাও এটা ভাববে। নিজেদের কথা ভেবে হ্যান্ডশেক না করাই ভালো।'

তিন ম্যাচের সিরিজে টসের সময়, ম্যাচের আগে বা ম্যাচ শেষে কখনই প্রতিপক্ষের সঙ্গে হ্যান্ডশেক করবে না প্রোটিয়ারা।

অন্যদিকে, ভিন্ন সুর ছিল অস্ট্রেলিয়ানদের। অস্ট্রেলিয়া দল ঘোষণা দিয়েছিল, তাদের খেলোয়াড়দের হ্যান্ডশেক না করার পরিকল্পনা নেই। মার্চের ১৩ তারিখ থেকে সিডনিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ওয়ানডে সিরিজে যথারীতি প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের সঙ্গে করমর্দনই করার কথা জানিয়েছেন তারা।

তাসমান সাগরের পাড়ের দুই প্রতিবেশীর লড়াইয়ের আগে অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার বলেছিলেন, ‘না, আমরা অন্যদের মতো বিকল্প উপায় খুঁজছি না। আমরা যথারীতি হ্যান্ডশেক চালিয়ে যাব। আমাদের যথেষ্ট হ্যান্ড স্যানিটাইজার রয়েছে। ফলে হ্যান্ডশেক করলে কোনো সমস্যা হবে বলে মনে হয় না।’

প্রসঙ্গত, এর আগেও করোনাভাইরাস ভীতিতে খেলতে নামার আগে সৌজন্যমূলক হ্যান্ডশেক করা বাদ দিয়েছে বেশ কিছু ফুটবল দল ও ক্লাব। সর্বশেষ ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগেও দেখা গেছে ফুটবলারদের হ্যান্ডশেক না করতে।