advertisement
আপনি দেখছেন

টি-টোয়েন্টির বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টেস্ট কিংবা ওয়ানডেতে সময়ের সাথে সাথে কিছুটা খারাপ করলেও, ক্রিকেটের সর্বশেষ সংস্করণে ঠিকই দুর্দান্ত ক্যারিবিয়ানরা। দলটির এক ঝাঁক হার্ডহিটার ব্যাটসম্যানের পাশাপাশি আছে প্রতিপক্ষের দূর্গ কাঁপানো বিশ্বমানের বোলার। তাই বিশ ওভারের ক্রিকেটে স্যার গ্যারিফিল্ড সোবার্স, ব্রায়ান লারার দেশকে সবাই সমীহের চোখেই দেখে।

rashid khan new 1রশিদ খান

অভিজ্ঞতায় কোনো অংশে পিছিয়ে নেই ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, পাকিস্তানের মতো দলগুলো। আছে নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা। অথচ এদের সবাইকে পেছনে ফেলে নাকি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার আশায় আছে আফগানিস্তান। জানালেন দলটির অধিনায়ক রশিদ খান। বিশ্বাস করেন সেই সামর্থ্য রাখে তারা। এখন শুধু প্রয়োজন বিশ্বাসের।

আফগানিস্তানকে খুব খারাপ দল বললে অবশ্য ভুলই করা হবে। কারণ তাদের আছে মুজিব উর রহমান, মোহাম্মদ নবী, হজরত উল্লাহ জাজাই, মোহাম্মদ শেহজাদের মতো পরিচিত মুখ। এরা প্রতিনিয়তই বিশ্বের নামকরা টি-টোয়েন্টি লিগে খেলে বেড়ান। সেই সুবাদে দিনে দিনে তারাও নিজেদের অভিজ্ঞতার ভান্ডারকে বড় করছেন। রশিদ খান ভরসা পাচ্ছেন এই জায়গাটিতেই।

rashid khan newরশিদ খান

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পথচলা খুব বেশিদিনের না হলেও আফগানিস্তান ইতোমধ্যেই হারিয়েছে বেশ কয়েকটি বড় দলকে। তাই রশিদ খান বলছেন, তারা এখন পাখির চোখে তাকিয়ে আছেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ট্রফিতে, ‘আমরা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার আশায় আছি। এটা অর্জন করার মতো সামর্থ্য আমরা রাখি। তবে সেই বিশ্বাসটা অর্জন করা জরুরি।’

লাল বলের ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত চার ম্যাচ খেলে দুইটিতে জয় আছে আফগানদের। রশিদের দাবি, তাদের প্রতিভার অভাব নেই। শুধু অভিজ্ঞতায় বড় দলগুলোর তুলনায় পিছিয়ে আছে তারা, ‘বোলিংয়ের পাশাপাশি আমাদের ব্যাটিং ইউনিটও দারুণ। মোট কথা, আমাদের প্রতিভা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু বড় দলগুলোর অভিজ্ঞতার কাছে আমরা হেরে যাচ্ছি। তাদের সাথে খুব একটা বেশি খেলাও হয়না। এটাই মূল কারণ।’

sheikh mujib 2020