advertisement
আপনি পড়ছেন

প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার রান পাহাড়ের দারুণ জবাব দিয়েছিল বাংলাদেশ। একমাত্র সেশনে স্বাগতিকদের দুজন ব্যাটসম্যান তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগারের ঘর স্পর্শ করেছিলেন। সিরিজের শেষ টেস্টে তার ছিঁটেফোটাও দেখাতে পারছে না মুমিনুল হক সৌরভরা। ব্যাটিং ব্যর্থতায় প্রথম ইনিংসের প্রথম সেশন ছিল দুঃস্বপ্নের মতো।

bd vs sl 2nd testফের ব্যাট হাতে ব্যর্থ মুমিনুল

মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাটিং বেছে নেন মুমিনুল। টাইগার দলপতির সিদ্ধান্তকে ভুল প্রমাণ করেন কাসুন রাজিথা। আগের টেস্টে কনকাসন সাবের পর চলমান টেস্টে সরাসরি খেলতে নেমে বাংলাদেশের টপ অর্ডারের টুটি চেপে ধরেছেন এই পেসার। রাজিথাকে যোগ্য সঙ্গ দিচ্ছেন আসিথা ফার্নান্দো। এই দুজনের তাণ্ডবে প্রথম সেশনে পাঁচ উইকেট হারিয়েছে লাল সবুজরা।

ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই ফিরে যান মাহমুদুল হাসান জয়। রাজিথার করা ১২৮ কিলোমিটার গতির ডেলিভারিতে বোল্ড হন এই ডানহাতি ওপেনার। রানের খাতা খুলতে পারেননি জয়। তার পরের ওভারে বিদায় নেন তামিম ইকবাল খান। শূন্য রানে আসিথার বলে প্রভীন জয়াবিক্রমার হাতে ক্যাচ দেন দেশসেরা ওপেনার এবং বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক।

bd vs sl tossটস জিতে আগে ব্যাটিং নেন মুমিনুল

তামিম আউট হওয়ার পর ক্রিজে এসে প্রথম বলেই চার মারেন মুমিনুল। ব্যক্তিগত ৯ রানে অফ স্টাম্পে পিচ করা বল কক্সবাজারের এই ক্রিকেটারের ব্যাটে লেগে উইকেটের পেছনে থাকা নিরোশান ডিকওয়েলার হাতে জমা পড়ে। এরপর নাজমুল হোসেন শান্ত এবং সাকিব আল হাসানরাও দলের হাল দলতে পারেননি। সাজঘরে হাঁটার আগে ৮ রান করেন শান্ত। গোল্ডেন ডাক মেরেছেন সাকিব।

দলীয় ২৪ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর প্রতিরোধ গড়েছেন লিটন কুমার দাস এবং মুশফিকুর রহিম। ষষ্ঠ উইকেটে ৪২ রানের নিরবচ্ছিন্ন জুটি গড়ে লাঞ্চে গেছেন এই দুজন। মুশফিক ২২ এবং লিটন ২৬ রান নিয়ে দ্বিতীয় সেশনে ব্যাট করতে নামবেন। ১৬ রানের বিনিময়ে তিন ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়েছেন রাজিথা। আসিথার শিকার দুই উইকেট।