advertisement
আপনি পড়ছেন

দলটা আগেই ঘোষণা করা হয়েছিল। শুধু চোটাঘাতের কারণে কয়েকটি পরিবর্তন আনতে হয়েছে নির্বাচকদের। গতকাল নতুন করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের তিন ম্যাচের সিরিজের জন্য বাংলাদেশের চূড়ান্ত টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। ১৪ সদস্যের ওই দলে নাম নেই তামিম ইকবালের।

batsman blamed tamimতামিম ইকবাল

এই দল ঘোষণা উসকে দিচ্ছে অনেক প্রশ্ন। সবচেয়ে জোরালো প্রশ্নটা হচ্ছে, তামিম আদৌ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলবেন কি? এই সিরিজের মধ্য দিয়েই অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের আগে জিম্বাবুয়ে সফরে তিনটি ম্যাচ এবং এশিয়া কাপে খেলবে বাংলাদেশ দল।

জুলাইয়ে ৬ মাসের বিরতি শেষ হলে টি-টোয়েন্টি নিয়ে তামিমের সিদ্ধান্তে কোনো পরিবর্তন আসবে কি? এর উত্তর সত্যিই অজানা। তবে পরিস্থিতি বলছে, আলোর রেখা নেই ক্ষুদে ফরম্যাটে তামিমের ক্যারিয়ারের ভবিষ্যত নিয়ে।

ক্যারিবিয়ানে যাওয়ার আগে কিছুটা অভিমানের সুরেই তামিম বলেছিলেন, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ক্যারিয়ারের ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলার সুযোগ পাচ্ছেন না। মিডিয়া কিংবা বোর্ডের অন্যরা তার ক্যারিয়ার নিয়ে কথা বলে যাচ্ছে। গত জানুয়ারিতে বিপিএল চলাকালীন এ ফরম্যাট থেকে ছয় মাসের বিরতিও নিয়েছিলেন তিনি। যার মেয়াদ শেষ হবে জুলাইয়ের মাঝামাঝি।

পরে তামিমের মন্তব্য নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সংবাদমাধ্যমকে বলেছিলেন, তিনি নিজে এবং বোর্ড থেকে চারবারই বাঁহাতি এ ওপেনারের সঙ্গে টি- টোয়েন্টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। কিন্তু ফিরতে রাজি হননি তামিম। যদিও এই ফরম্যাটে দেশের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান তিনি।

বিসিবি সভাপতি আরও বলেছিলেন, ‘আমরা চাই সে টি-টোয়েন্টি খেলুক। এখন সে কি খেলবে? সে কি বিশ্বকাপে খেলতে চায়? যদি খেলতে চায়, তাহলে তাকে আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলতে হবে।’

উত্তরটা এখন পরিষ্কার, তামিম উইন্ডিজ সফরের টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলছেন না। তাহলে বিশ্বকাপ পরিকল্পনায় তার উপস্থিতিও আশাব্যঞ্জক নয়।

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শেষে আগামীকাল শনিবার স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টি খেলতে নামবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। তামিম এখন ক্যারিবিয়ানে দলের সঙ্গেই আছেন। এই সিরিজের পরই স্বাগতিকদের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ, যেখানে বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবেন তামিম। ক্ষুদে সংস্করণের সিরিজটা চলবে ২ থেকে ৭ জুলাই। সফরে থেকেও এই কয়টা দিন হয়তো অলস সময় কাটবে তামিমের।

তবে দল সূত্রে জানা গেছে, টি-টোয়েন্টি সিরিজ চলাকালীন ক্যারিবিয়ানের অন্য আরেকটি দ্বীপে ভ্রমণে যাবেন তামিম। সেখান থেকে গায়ানায় দলের সঙ্গে যোগ দেবেন। সেন্ট লুসিয়া থেকে ফেরীতে চড়ে আটলান্টিক পাড়ি দেয়ার দুঃসহ অভিজ্ঞতা হয়নি তামিমের। ডমিনিকায় প্রথম দুই ম্যাচে তাই দলের সঙ্গে থাকছেন না তিনি।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বশেষ ২০২০ সালে টি-টোয়েন্টি খেলেছেন তামিম। তারপর থেকে এই ফরম্যাটে কার্যত নির্বাসিত অভিজ্ঞ এ ওপেনার। গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপেও খেলেননি। চলতি বছর অস্ট্রেলিয়ায় তাকে পাওয়া যাবে কি না, তাও অজানা।