advertisement
আপনি পড়ছেন

উপমহাদেশের ফুটবল সমর্থকদের বেশির ভাগই ব্রাজিল-আর্জেন্টিনায় বিভক্ত। ফলে ব্রাজিল-আজেন্টিনা মুখোমুখি মানেই উপমাহাদেশের ফুটবলে বাড়তি আগ্রহ, বাড়তি রোমাঞ্চ, বাড়তি আলোচনা। পুরো ফুটবলবিশ্বেই অবশ্য রোমাঞ্চিত লড়াই এটা। যুগ যুগ ধরে নিজেদের মধ্যে দুই দলের ‘চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ’ মনোভাব বাড়িয়ে নেওয়াই হয়তো এর কারণ। এই রোমাঞ্চ আবারো উপভোগের সুযোগ পেতে যাচ্ছে ফুটবলবিশ্ব।

messi neymar

আগামী জুনেই একে অপরের মুখোমুখি হচ্ছে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা। ম্যাচটা অবশ্য হবে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে। দুই দলের মধ্যে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচের আয়োজন করা হয়েছে সেখানে। আজ শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ভিক্টোরিয়া রাজ্য কর্তৃপক্ষ।

প্রীতি ম্যাচ হলেও পূর্ণ শক্তির দল নিয়েই মাঠে নামার কথা দুই দলের। ফলে বর্তমানের অন্যতম সেরা দুই ফুটবলার লিওনেল মেসি ও নেইমারের মুখোমুখি লড়াই দেখার সৌভাগ্যও হচ্ছে। বর্তমানে বার্সেলোনার জার্সি গায়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ছেন মেসি-নেইমার। কিন্তু মেলবোর্নের একে অপরের শত্রু হয়ে পড়তে হবে।

গত নভেম্বরে মুখোমুখি হয়েছিল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে ঘরের মাঠে আর্জেন্টিনাকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল নেইমারের ব্রাজিল। ওই হারটা বেশ পুড়িয়েছে মেসিদের। আগামী রাশিয়া বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলে বর্তমানে পাঁচ নম্বরে নেমে গেছে আর্জেন্টিনা। আর ব্রাজিল সবার শীর্ষে। ফলে একটা ‘শোধ’ নেওয়ার লক্ষ্য নিয়েই হয়তো মাঠে নামবেন মেসিরা।

তবে কতটা সফল হতে পারবেন সেটা সময়ই বলে দিবে। ব্রাজিলের বিপক্ষে সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচে মাত্র এক ম্যাচ জিততে পেরেছে আর্জেন্টিনা। তিনটিই জিতেছে ব্রাজিল। অপরটি শেষ ড্রয়ে।