advertisement
আপনি পড়ছেন

চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপার দৌড়ে টিকে থাকতে হলে ‘ইতিহাস’ই গড়তে হবে বার্সেলোনাকে। শেষ ষোলর প্রথম লেগে পিএসজির মাঠ থেকে ৪-০ গোলে হেরে এসেছে বার্সেলোনা। দ্বিতীয় লেগের অন্তত পাঁচ গোলের ব্যবধানে জিততে হবে কাতালান ক্লাবটিকে। কিন্তু অতীতে চ্যাম্পিনস লিগের নকআউট পর্বে কোন দলই প্রথম লেগে চার গোলে পিছিয়ে পরে পরের রাউন্ডে যেতে পারেনি। আজ রাতে ইতিহাসটা পাল্টে দিতে পারবেন তো লিওনেল মেসি, লুইস সুয়ারেজ ও নেইমাররা?

messi neymar

বাংলাদেশ সময় রাত ১২.৪৫টায় ঘরের মাঠে পিএসজির বিপক্ষে মাঠে নামবে বার্সেলোনা। রাতে ইতিহাস নতুন করে লেখার লক্ষ্য নিয়েই যে মেসি-নেইমাররা মাঠে নামবেন সেটা না বললেও চলে। বার্সা কোচ লুইস এনরিকে, আক্রমণভাগের অন্যতম ভরসা লুইস সুয়ারেজ আগেই হুঙ্কার দিয়ে রেখেছেন।

মাঠে সেটা করে দেখানোর সামর্থও আছে বার্সেলোনার। ইতিহাস ভাঙা-গড়া নিয়েই তো এগিয়ে চলেছেন মেসিরা। কঠিন সমীকরণ মেলাতে বার্সেলোনার চেয়ে উপযুক্ত ক্লাব আর বর্তমানে কোনটাই বা আছে! তাছাড়া কয়েক সপ্তাহ আগেও খুড়িয়ে চলা বার্সেলোনার বর্তমান সময়টাও দারুণ কাটছে।

গত দুই ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে ১১ গোল দিয়েছে বার্সেলোনা। বিপরীতে গোল হজম করতে হয়েছে মাত্র একটি। লিওনেল মেসি আগের মতোই দুর্দান্ত। লুইস সুয়ারেজও ফর্মে। সম্প্রতি তাদের সাথে যোগ দিয়েছেন নেইমার। গোল সংখ্যায় চলতি মৌসুমে প্রত্যাশা মেটাতে পারছিলেন না ব্রাজিল তারকা।

কিন্তু গত দুই ম্যাচের দুর্দান্ত খেলেছেন। গোলের প্রত্যাশা মিটিয়েছেন। দারুণ দুটি গোল করেছেন নেইমার। অর্থাৎ ‘এমএসএন’ ত্রয়ীর সবাই ফর্মে। এমএসএন ত্রয়ী ছন্দে থাকলে আর কি লাগে। এক সাথে জ্বলে উঠলে ইতিহাস গড়া তো হতেও পারে বার্সেলোনা।

পিএসজির আক্রমণভাগের ফুটবলার ড্রাক্সলারও বললেন, ‘তারা সম্ভবত বিশ্বের সেরা। তারা সব কিছুই করতে পারে।’ ড্রাক্সলারের কথাটা হয়তো আরও আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে মেসি-নেইমার-সুয়ারেজকে।