advertisement
আপনি পড়ছেন

টিকিট কেটে স্টেডিয়ামে গিয়ে অথবা রাত জেগে টিভি সেটের সামনে বসে এর চেয়ে বেশি আর কী আশা করা যায়! আর্সেনাল ও লেস্টার সিটির ম্যাচের মধ্য দিয়ে মাঠে গড়ালো ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ। লিগের প্রথম ম্যাচটাতে পয়সা উসুল দর্শকদের। কী ছিল না আর্সেনাল-লেস্টার ম্যাচটাতে- রোমাঞ্চ, নাটকীয়তা, অনিশ্চয়তা সবই ছিল। ম্যাচে গোলই তো হলো সাতটা। সাত গোলের রোমাঞ্চকর ম্যাচে শেষ হাসিটা হেসেছে আর্সেনাল।

arsenal vs leicester city

আগেরবার বিস্ময় জাগিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলেও ১২ নম্বর দল হিসেবে গত মৌসুম শেষ করেছে লেস্টার সিটি। আর আর্সেনাল পাঁচ নম্বর দল হিসেবে মৌসুম শেষ করেছিল। শক্তির বিচারেও লেস্টারের চেয়ে যোজন যোজন এগিয়ে আর্সেনাল। কিন্তু মাঠের খেলায় কে বলবে- লিগের প্রথম ম্যাচে আর্সেনালের চোখে চোখ রেখে লড়েছে লেস্টার সিটি।

আলেকজান্ডার ল্যাকজেটের গোলে ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই এগিয়ে যায় আর্সেনাল। শুরুর ধাক্কা সামলে উঠতে সময় বেশি নেয়নি লেস্টার সিটি। তিন মিনিট পরই শিনজি ওকাজাকি ১-১ গোলে সমতায় ফেরায় লেস্টারকে। ২৯ মিনিটে লেস্টারকে ২-১ গোলের লিডও এনে দেন জেমি ভার্ডি। ওয়েলব্যাকের গোলে প্রথমার্ধেই অবশ্য ২-২ গোলের সমতায় ফেরে আর্সেনাল। ম্যাচটা সেখানেই শেষ হলেও ‘পয়সা উসুল’ বলতে হতো।

কিন্তু ম্যাচের আসর রোমাঞ্চ অপেক্ষা করছিল দ্বিতীয়ার্ধে। ৫৬ মিনিটে ভার্ডির দ্বিতীয় গোলে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে যায় লেস্টার সিটি। এই গোলটাতে মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই বড় জয়ের স্বপ্নও দেখছিল হয়তো লেস্টার সমর্থকরা। ৮০ মিনিটে পর্যন্ত যে এগিয়ে থাকল লেস্টারই।

তবে শেষ পর্যন্ত জয় নিয়ে মাঠ ছাড়া হয়নি লেস্টারের। লেস্টারের চেয়ে তারা যে ভালো দল সেটা ম্যাচের শেষ বিশ মিনিটে ভালোভাবেই প্রমাণ করল আর্সেনাল। ৮৩ মিনিটে রামসের গোলে ৩-৩ ব্যবধানে সমতা। ৮৫ মিনিটে গিয়ে অলিভার জিরুদের গোল, ৪-৩ গোলে এগিয়ে আর্সেনাল। এরপর আর গোল হয়নি। যাতে শেষ পর্যন্ত এই ৪-৩ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে আর্সেনাল।