advertisement
আপনি পড়ছেন

হাসিমাখা মুখ নিয়ে পাশাপাশি চেয়ারে বসে সবুজ ময়দানের যুদ্ধটা দেখছিলেন রিয়াল মাদ্রিদ ও প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) প্রেসিডেন্ট। হাসিটা শেষ পর্যন্ত থাকল রিয়ালের প্রধান কর্তা ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের মুখে। বিমর্ষ হতে হলো পিএসজির কর্ণধার নাসির আল-খেলাইফিকে। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ৩-১ গোলে দল হারায় হতাশ হয়েছেন তিনি। রাগ আর ক্ষোভের বশেই না আবার বলে দিলেন, ‘আমি শতভাগ নিশ্চিত। নেইমারের মাদ্রিদে যাওয়া হচ্ছে না।’

cavani neymar psg goal

দল বদলের সব রেকর্ড দুমড়ে-মুচড়ে কয়েক মাস আগে বার্সেলোনা ছেড়ে ছবি ও কবিতার দেশে এসেছিলেন নেইমার। কিন্তু নতুন ঠিকানায় থিতু হওয়ার আগেই সতীর্থ এডিনসন কাভানি ও কোচ উনাই এমেরির সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার। পিএসজিতে সুখে নেই নেইমার- এমন কথাও তো উঠেছে।

তাকে ঘিরে আরো বড় গুঞ্জন উঠল কদিনের মধ্যেই। মৌসুম শেষে রিয়াল মাদ্রিদে যেতে পারেন নেইমার। ইউরোপিয়ান শীর্ষ গণমাধ্যমগুলো এমন শিরোনামে সংবাদ প্রচার করেছিল। বাতাসে ভেসে বেড়ানো কথাগুলো ডাল-পালা মেলতে শুরু করে নেইমার ও তার বাবা রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে পুরোদমে যোগাযোগ রাখায়।

অনেকে তো ধরেই নিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদ হতে যাচ্ছে ব্রাজিলিয়ান সেনসেশনের আগামী মৌসুমের গন্তব্য। সেই নেইমার বৃহস্পতিবার যখন সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে প্রবেশ করলেন করতালি দিয়ে তাকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানিয়েছেন রিয়াল সমর্থকরা। সবকিছু প্রায় ঠিকঠাকই এগুচ্ছিল। রিয়ালও নাকি ফ্রেঞ্চ চ্যাম্পিয়নদের ৪০০ মিলিয়ন ইউরো জিতে রাজি ছিল।

এরই মধ্যে বোমাটা ফাটালেন পিএসজি প্রেসিডেন্ট। নেইমারের দল-বদল প্রসঙ্গটা নাকচ করে উড়িয়ে দিলেন সব গুঞ্জন। চ্যাম্পিয়নস লিগের নক আউট পর্বের প্রথম লেগের ম্যাচে হারার ঘণ্টা খানেকের মধ্যে আল-খেলাইফি বিআইএন স্পোর্টসকে বলে দিলেন, ‘অবশ্যই, আপনি শতভাগ নিশ্চিত থাকতে পারেন। আগামী বছর নেইমার পিএসজিতে থাকছেন।’

ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার হয়তো প্যারিসেই থাকবেন, কিন্তু এই মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে পিএসজির থাকাটা কঠিন করে দিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। ম্যাচের স্কোর লাইন দেখে স্বাভাবিকভাবে হতাশ হয়েছেন আল-খেলাইফি। দুই গোল ব্যবধানের হারটা তার মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে বাজে রেফারিংয়ের কারণে।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলন করে ইতালিয়ান রেফারি জিয়ানলুচা রোচ্চিকে এক হাত নিয়েছেন পিএসজি প্রেসিডেন্ট। বলেছেন, ‘ফলটা আমার কাছে পরিষ্কার নয়। আমরা দ্বিতীয়ার্ধে দারুণ খেলেছি। অনেকগুলো সুযোগও তৈরি করেছি। (কিলিয়ান) এমবাপ্পের অফসাইড দেয়া হয়েছে, কিন্তু সে নিরাপদ জায়গাতেই ছিল। পেনাল্টির সিদ্ধান্ততেও আমি বিস্মিত হয়েছি। আমার মনে হয় আজ (বৃহস্পতিবার) রাতে রেফারি তাদের (রিয়াল মাদ্রিদ) সহায়তা করেছে।’

রেফারিং বাজে হতে পারে, তাই বলে ম্যাচের ফলটা তো আর পাল্টাতে পারবেন না পিএসজি কর্ণধার। ৬ মার্চ দ্বিতীয় লেগে রিয়ালের কাছে অগ্নিপরীক্ষাই দেয়া লাগতে পারে ফ্রেঞ্চ ক্লাবটিকে। অথচ বার্নাব্যু ছাড়ার আগে উল্টো রিয়ালকেই হুমকি দিয়ে গেলেন আল-খেলাইফি, ‘প্যারিসে রিয়ালের জন্য কঠিন কিছু অপেক্ষা করছে।’