advertisement
আপনি পড়ছেন

বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে গিয়ে প্রথম ম্যাচ থেকেই জাদু দেখিয়ে যাচ্ছেন নেইমার। ফলে তাকে নিয়ে কতো নাচানাচি! ব্যালন ডি’অর জয়ের কাছাকাছিও বলা হচ্ছিল। কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে খুব বেশি কিছু করতে না পারাতেই ছেঁকে ধরেছেন সমালোচকরা। কাঁধে তুলে নিয়ে বেড়াতে বেড়াতে ধপাস করে ফেলে দেওয়ার মতো অবস্থা হয়েছে। 

neymar ronaldo psg vs real madrid

অবশ্য সমালোচনার বড় কারণও আছে। নেইমারকে কিনতে রিলিজ ক্লজই ২২২ মিলিয়ন ইউরো খরচ করতে হয়েছে পিএসজিকে। অন্যান্য খরচের সঙ্গে নেইমারের বেতন, ভাতা তো আছেই। বস্তা বস্তা অর্থ তার পেছনে ঢালা হচ্ছে তো এই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সাফল্যের কারণেই। সেখানকার সবচেয়ে বড় লড়াইটাতেই পারলেন না। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে রিয়ালের মাঠে গোল করা বা করানো কোনটিতেই সফল হাতে পারেননি  ব্রাজিল সুপারস্টার। সমালোচনা তো হবেই।

ব্রাজিলের সাবেক ফুটবলার ওয়াল্টার কাসাগ্রান্দেও সেই সমালোচকদের দলে। ব্রাজিলের হয়ে ১৯ ম্যাচ খেলা এই ফুটবলার নেইমারের উপর রীতিমতো বিরক্তও! গোল করা বা করাতে না পারার কারণে নয়। ওয়াল্টারের বিরক্তির কারণ হলুদ কার্ড।

মাদ্রিদে ম্যাচের প্রথমার্ধে অযথাই ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেছেন নেইমার। এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে নেইমারের ওই ফুটবল একেবারেই মেনে নিতে পারছেন না তিনি। ওয়াল্টার বলেন, ‘অধিকাংশ সমর্থক এবং গণমাধ্যম এখনও নেইমারের পিঠ চাপড়ে দিচ্ছে দেখে আমি বিরক্ত। সে এরই মধ্যে দলের ভেতরে অসঙ্গত আচরণ করেছে। রিয়ালের বিপক্ষে প্রথমার্ধে হলুদ কার্ড দেখল। দ্বিতীয়ার্ধে মাঠও ছাড়তে পাড়ত সে।’

নেইমারকে নিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপে শিরোপা জেতার স্বপ্ন দেখছে ব্রাজিল। ওয়াল্টার সেই প্রসঙ্গও টেনে আনলেন। তিনি বলেন, ‘সে যদি বিশ্বকাপেও এমন করে, তাহলে সেটা ব্রাজিলের জন্য বিপর্যয়ের কারণ হবে। আমরা একটা দানব তৈরি করেছি, কিন্তু অনেকে মনে করছে সে জিনিয়াস।’