advertisement
আপনি পড়ছেন

প্রীতি ম্যাচটা শুরু হয়েছিল শোকের আবহে। প্রয়াত ফিওরেন্তিনা অধিনায়ক ডেভিড আস্তোরিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে শুরু হয় ম্যাচ। তার আগে এক মিনিটের জন্য ইতিহাদ স্টেডিয়ামে নেমে আসে মৃত্যুপুরীর নীরবতা। তবে ম্যাচটি শেষ হয় উৎসবে। যে উৎসব নামিয়ে আনে মেসিবিহীন আর্জেন্টিনা। এভার বানেগা ও ম্যানুয়েল লানজিনি একটি করে গোল করে আর্জেন্টিনাকে জেতান। 

argentina beat italy in friendly fight

সাবেক ফুটবলারের শোকের ধকলটা যে বুফনরা কাটিয়ে উঠতে পারেননি সেটা তাদের চোখে মুখে স্পষ্ট হয়ে ওঠে ম্যাচের শুরুতেই। বুফনদের সামনে দাঁড়িয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ডি মারিয়া-বানেগারাও স্মরণ করেন আস্তোরিকে। আস্তোরি সবসময়ই আমাদের সঙ্গে আছে- এই স্লোগানে শুরু হয় দুই দলের প্রীতি ম্যাচ।

ম্যাচে ইতালিয়ানদের শরীরজুড়ে থাকল সাদা রঙের জার্সি। কিন্তু এদিন আর্জেন্টিনা ধারণ করে শোকের রঙ- কালো। তবে তাদের কালো রঙের জার্সি পরার কারণটা অবশ্যই প্রয়াত আস্তোরি নয়, হিগুয়েইন-ডি মারিয়াদের পরিহিত কালো কিটস আসলে তাদের বিশ্বকাপের জার্সি। নতুন জার্সিতে দুর্দান্ত এক আর্জেন্টিনারই দেখা মিলে এদিন।

de maria played well while argentina beats italy

আস্তোরি- স্মরণে ইতালির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করলেও মাঠের লড়াইয়ে তাদের ন্যূনতম ছাড় দেয়নি আর্জেন্টিনা। শুক্রবার প্রীতি ম্যাচটাতে শোকাহত বুফনদের ২-০ গোলে হারিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করলেন জর্জ সাম্পাওলির শিষ্যরা।

তবে ম্যানচেস্টার ম্যাচের ফল ম্যাচের অতি আবেগী চরিত্রের পুরোটা তুলে ধরছে না। ম্যাচটা যদিও জিতেছে আর্জেন্টিনা, কিন্তু লড়াইয়ের ঝাঁজ কম ছড়ানি ইতালিও। দুই দল বরং পুরোটা সময় করেছে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই।

ম্যাচে যে দুইটা গোল হয়েছে, একেবারে অন্তিম সময় তা করেছে আর্জেন্টিন। অথচ এই ম্যাচে নিয়মিত অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে একাদশেই রাখেননি সাম্পাওলি!

এই জয়ের জন্য আর্জেন্টিনা কোচ ধন্যবাদ দিতে পারেন এভার বানেগা ও ম্যানুয়েল লানজিনি। ম্যাচের দুটো গোল যে এ মানিকজোড়ই করেছেন। ৭৫ মিনিটে আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে দেন বানেগা। দশ মিনিট পর স্কোর লাইন ২-০ করেন লানজিনি।