advertisement
আপনি পড়ছেন

অবিশ্বাস্য, অভাবনীয়, অকল্পনীয়, অচিন্তনীয় কিংবা অতুলনীয়। ২০১৪ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ব্রাজিলকে যেভাবে বিধ্বস্ত করেছিল জার্মানি সেটার বিশেষণ হতে পারে এ রকম আরো অনেক কিছু। প্রায় চার বছর আগে বেলে হরিজন্তে জার্মানির কাছে ব্রাজিল পিষ্ট হয়েছিল ৭-১ গোলে!

joachim loew in a press conference

নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে বিশ্বমঞ্চে এর চেয়ে লজ্জার হার কখনো মানতে হয়নি সেলেকাওদের। ব্রাজিলিয়ানদের তাদেরই মাঠে চূর্ণ করে জার্মানরা অনেক কিছু ফিরিয়ে দিয়েছে সেদিন। সেই ট্র্যাজেডিক হারটা কখনোই মনে করতে চাইবে না ব্রাজিল। দুঃস্বপ্নটা ভুলে সামনে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ঝরেছে ব্রাজিলিয়ানদের কণ্ঠে।

ইনজুরির কারণে সেদিনের ম্যাচে ব্রাজিল দলে ছিলেন না সেরা খেলোয়াড় নেইমার। সময়ের পরিক্রমায় আবারো সেই জার্মানির সামনে সেলেকাওরা। কাকতালীয়ভাবে এবারো নেইমারকে ছাড়া মাঠে নামতে হচ্ছে ব্রাজিলকে। তবে এবার ব্রাজিলের মাঠ নয়, জার্মানির মাঠ বার্লিনে আজ রাতে প্রীতি ম্যাচে ফের মুখোমুখি হচ্ছে দল দুটো।

এই মহারণপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে স্বাভাবিকভাবেই ৭-১ প্রসঙ্গটা উঠল। জবাবে জার্মানি কোচ জোয়াকিম লো জানালেন সেই ম্যাচটা নাকি ভুলে গেছেন তারা। জার্মানদের বিশ্বজয়ী কোচ বলেছেন, ‘ওটা আমাদের জন্য দুর্দান্ত একটা ম্যাচ ছিল। কিন্তু শিরোপা যাত্রায় ওটা ছিল নিছকই একটা ম্যাচ, এর বেশি কিছু নয়। আপনি পেছনের দিকে তাকান, ওই ম্যাচটা আমরা পরের দিনই ভুলে গেছি।’

এই চার বছরে অবশ্য বদলে গেছে ব্রাজিল। কাটিয়ে উঠেছে ধাক্কাটা। আসন্ন রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে নিজেদের হট ফেভারিট হিসেবে প্রস্তুত করেছে। এই বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবেই মঙ্গলবার রাতে জার্মান দুর্গ বার্লিনে আসছে ব্রাজিল।

তবে মুখে না বললেও মনেপ্রাণে সেই হারের প্রতিশোধটা এদিন নিতে চাইবে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। জার্মানি কোচও মানছেন কথাটা। প্রতিশোধ নিতে মুখিয়ে আছে সেলেকাওরা। লো বলেছেন, ‘অবশ্যই। ব্রাজিল কিছুটা হলেও প্রতিশোধ নিতে চাইবে। কিন্তু এটা সম্ভব না। আপনি ওই সেমিফাইনাল আর ফিরে পাবেন না।’