advertisement
আপনি পড়ছেন

বার্সেলোনার জার্সি গায়ে মাঠে রীতিমতো ফুল ফোটাচ্ছিলেন নেইমার। প্রতিপক্ষ ফুটবলারদের নাচিয়ে নিয়মিত গোল করছিলেন, করাচ্ছিলেন। কিন্তু তারপরও বার্সা ছেড়ে উড়াল দিয়েছেন পিএসজিতে। উদ্দেশ্য ছিল লিওনেল মেসির ছায়া থেকে বের হয়ে বিশ্বসেরা হবেন। কিন্তু আসলেই কি বিশ্বসেরা হতে পারবেন নেইমার? ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার রবার্তো কার্লোস বললেন ‘আপতত না’।

neymar roberto

লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো যতোদিন ফর্মে আছেন ততোদিন বিশ্বসেরা হওয়া হবে না, নেইমারকে বলেছেন ব্রাজিল কিংবদন্তি। ‘দ্য বুলেট ম্যান’ হিসেবে পরিচিত কার্লোসের মতে নেইমারকে আপাতত তৃতীয় হয়েই থাকতে হবে, ‘মেসি-রোনালদো যতোদিন ফর্মে আছে, ততোদিন ওকে (নেইমার) তৃতীয় হয়েই থাকতে হবে।’

শুনতে খারাপই লাগবে, তবে নেইমারের জন্য কার্লোসের এই কথাটা ‘চরম বাস্তব’। লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো খেলছেন বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের মতো বিশ্বসেরা দুই ক্লাবে। স্পেনের এই দুই ক্লাবের হয়ে অল্প কিছু অর্জন করলেই বড় আলোচনা ছড়ায়। সেখানে গোলের পর গোল করে বড় বড় অর্জনই করে যাচ্ছেন দুজন। এই দুজনের গোল বন্যা যতোদিন শেষ না হবে ততোদিন অন্য কোথাও থেকে এসে ব্যালন ডি’অর জেতা বেশ কষ্টেরই। মেসি-রোনালদোকে ছাড়িয়ে ব্যালন ডি’অর জিততে হলে অনেক বড় কিছু অর্জন করতে হবে কাউকে।

অবশ্য ‘অনেক বড় কিছু’ অর্জনের সুযোগ এই বছরই পাচ্ছেন নেইমার। কদিন পর রাশিয়া বিশ্বকাপ। রাশিয়ায় যদি ব্রাজিল ষষ্ঠ শিরোপা উদযাপন করতে পারে আর নেইমার যদি মোটামুটি খেলতে পারেন তবে তার হাতেই হয়তো আগামীর ব্যালন ডি’অর উঠবে। পায়ের পাতার হাঁড় ভেঙে যাওয়াতে এই মুহূর্তে মাঠের বাইরে আছেন নেইমার। তবে বিশ্বকাপের আগেই মাঠে ফেরার কথা তার।

ইনজুরিতে পড়ার আগে এবারের মৌসুমে ৩০ ম্যাচ খেলে ২৮ গোল করেছেন নেইমার। পাশাপাশি অন্যদের দিয়ে  করিয়েছেন ১৬টি গোল। ইনজুরিতে পড়ার আগে গোল করার দিক দিয়ে রোনালদোর চেয়ে অনেকটা এগিয়ে ছিলেন এবং মেসির কাছাকাছি ছিলেন। কিন্তু এখন মেসি-রোনালদো অনেকটা এগিয়ে গেছেন নেইমারের চেয়ে। চলতি মৌসুমে ৪৩ ম্যাচে ৩৭ গোল করেছেন মেসি। আর এখন পর্যন্ত ৩৭ ম্যাচে ৩৮ গোল করেছেন রোনালদো।