advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

প্রায় নয় মাসের নির্বাসন কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরতে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি। আসন্ন দুটি প্রীতি ম্যাচের জন্য বার্সেলোনা মহাতারকা আর্জেন্টিনা জাতীয় দলে ফিরেছেন। এবার মেসির চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোও জাতীয় দলে ফিরলেন দীর্ঘদিনের বিরতি শেষে।

ronaldo celebrates a goal for portugal

আগামী ২২ মার্চ ইউক্রেনের মুখোমুখি হবে পর্তুগাল। তিনদিন পর ইউরো চ্যাম্পিয়নদের প্রতিপক্ষ সার্বিয়া। ইউরো ২০২০ বাছাইপর্বের দুটি ম্যাচই পর্তুগিজরা খেলবে ঘরের মাঠ লিসবনে। এই দুটি ম্যাচের জন্য জাতীয় দলে ফিরলেন রোনালদো। যা ভক্ত-সমর্থকদের বড় একটা স্বস্তি উপহার দিয়েছে।

শুক্রবার বাছাইপর্বের দুই ম্যাচের জন্য দল ঘোষণা করেছেন পর্তুগাল কোচ ফার্নান্দো সান্তোস। ঘোষিত দলে তিনি ডেকে পাঠিয়েছেন জুভেন্টাস প্রাণভোমড়াকে। গত বছর রাশিয়া বিশ্বকাপে শেষ ষোলোতে বিদায় নেওয়ার পর এই প্রথম জাতীয় দলের স্কোয়াডে রাখা হলো রোনালদোকে।

৩৪ বছর বয়সী রোনালদো আন্তর্জাতিক ফুটবলে ১৫৪টি ম্যাচ খেলে ৮৫টি গোল করেছেন। গত মৌসুমের ফর্মটা এই মৌসুমেও বয়ে এনেছেন রোনালদো। ইতোমধ্যেই নতুন ক্লাব জুভেন্টাসের জার্সিতে ৩৪ ম্যাচে ২৪টি গোল করেছেন ‘সিআর সেভেনে’র জাতীয় দলের ফেরার ঘোষণা দিয়ে পর্তুগাল কোচ সান্তোস বলেছেন, ‘রোনালদো বিশ্বসেরা ফুটবলার। ওকে জাতীয় দলে ফেরানো হয়েছে।’

অবশ্য নিয়মিত অধিনায়ককে ছাড়া সময়টা খারাপ কাটেনি পর্তুগালের। রোনালদোকে ছাড়া ছয় ম্যাচের একটিতেও হারেনি ইউরো চ্যাম্পিয়নরা। জয় পেয়েছে তিনটিতে; বাকি তিনটিতে ড্র করেছে সান্তোসের দল। যা তাদের এনে দিয়েছে উয়েফা নেশন্স লিগের সেমিফাইনালের টিকিট।

sheikh mujib 2020