advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 33 মিনিট আগে

স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন বারণ করেছিলেন। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কিংবদন্তি কোচের নিষেধাজ্ঞা শুনলে তো! ওল্ড ট্রাফোর্ডে বার্সেলোনা অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে ঠিকই আঘাত করেছেন ম্যানইউ ডিফেন্ডার ক্রিস স্ম্যালিং। তাতে রক্তাক্ত পর্যন্ত হতে হয়েছে আর্জেন্টাইন সুপারস্টারকে।

lionel messi left bloodied nose smalling half old trafford

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগের ৩০ মিনিটে মেসি হেড নিতে গিয়েছিলেন। কিন্তু পেছন থেকে চিতার গতিতে দৌড়ে এসে মেসির কাঁধে চড়ে লাফ দেন স্ম্যালিং। তখনই ম্যানইউ ডিফেন্ডারের বাহুর সংঘর্ষে নাকে আঘাত পান মেসি। নাক দিয়ে রক্ত ঝরে মেসির। চোখেও চোট পেয়েছেন বার্সা দলপতি।

অবশ্য রক্ত ঝরলেও বড় কোনো ক্ষতি হয়নি মেসির। তবে তার মুখমণ্ডলে আঘাতের ছাপটা স্পষ্ট। মাঠে ও ডাগ আউটে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ম্যাচের বাকি এক ঘণ্টা খেলেছেন মেসি। ম্যাচটাও বার্সা জিতেছিল ১-০ গোলে। কিন্তু কাতালানদের জয়ের আনন্দ মাটি হয়ে গেছে প্রাণভোমরার চোটে।

যার কারণে রক্তাক্ত হয়েছেন মেসি, সেই স্ম্যালিং জানালেন ইচ্ছেকৃতভাবে আঘাত করেননি তিনি। শুক্রবার বিবিসি রেডিওকে ম্যানইউ ডিফেন্ডার বলেছেন, 'আমরা এটা নিয়ে কথা বলেছিলাম। করমর্দনও করেছিলাম। আমরা জানি এটা একটা দুর্ঘটনা ছিল। আমি বুঝতে পারিনি যে ওর সাথে লেগে যাবে।'

ওই ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে একইভাবে লুইস সুয়ারেজকেও ফাউল করেছিলেন স্ম্যালিং। যদিও উরুগুয়েন তারকার তেমনকিছুই হয়নি। ম্যাচ শেষে স্ম্যালিংকে শুভ কামনা জানিয়েছেন সুয়ারেজ। স্ম্যালিং বলেছেন, 'ম্যাচ শেষে সুয়ারেজ এসেছিল আমার কাছে। আমার হাত শক্ত করে ধরেছিল এবং বলেছিল, ''শুভ কামনা''। এটা দারুণ যে ম্যাচ শেষে একে অন্যের প্রতি শ্রদ্ধা দেখায়।'

অবশ্য সুয়ারেজ কিছু না বললেও মেসি রক্তাক্ত হওয়ায় ভীষণ ক্ষেপেছেন বার্সা কোচ এরনেস্তো ভালভার্দে। শুক্রবার লা লিগা ম্যাচ পূর্ব সংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেছেন, 'মেসিকে আমরা বিশ্রাম দেব। ওটা (মেসির আঘাত পাওয়ার মুহূর্ত) খুব তীব্র ছিল। যেভাবে আপনার ওপর দিয়ে একটা ট্রেন যেতে পারে।'

sheikh mujib 2020