advertisement
আপনি দেখছেন

জার্মান বুন্দেসলিগা চলতি আসরে খুব একটা সুবিধা করতে পারছে না বায়ার্ন মিউনিখ। টানা সাতবারের চ্যাম্পিয়নদের ব্যর্থতার দায়ে চাকরি গেছে প্রধান কোচ নিকো কোভাকের। ভারপ্রাপ্ত কোচের অধীনেও ধুঁকছে বাভারিয়ানরা। শনিবার রাতে লিগে ফের হরে বসল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

bayern lost by leverkusen

বায়ার্ন মিউনিখ এবার হেরেছে বায়ার লেভারকুজেনের বিরুদ্ধে। তাও আবার ঘরের মাঠ এলিয়েঞ্জ এরিনায়। বায়ার্নকে তাদেরই মাঠে ২-১ গোলে হারিয়েছে লেভারকুজেন। দীর্ঘ সাত বছর পর এলিয়েঞ্জ এরিনায় এসে জিতল দলটি। লিগের চলতি আসরে এটা বায়ার্ন মিউনিখের তৃতীয় হার।

১৩ ম্যাচে তিন জয় ও দশ জয়ে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের তিনে নেমে গেছে বাভারিয়ান ক্লাবটি। এক পয়েন্ট এগিয়ে থেকে দুইয়ে উঠেছে শালকে জিরো ফোর। তাদের সমান ২৫ পয়েন্ট বরুসিয়া মনচেনগ্লাডব্যাচেরও। তবে গোলগড়ে এগিয়ে থাকায় শীর্ষে আছে তারা। শীর্ষে থাকা দলটি আবার এক ম্যাচ কম খেলেছে।

পরিচিত দর্শকদের সামনে বায়ার্ন হেরেছে নিজেদের ভুলে। এদিন রীতিমতো গোলমিসের মহড়া বসিয়েছে তারা। দুর্ভাগ্যও যেন পিছু নিয়েছিল। যেটার মাসুল গুণতে হলো পুরো তিন পয়েন্ট খুইয়ে। দুর্ভাগ্যের শুরুটা ম্যাচের নয় মিনিটে; সার্গি জিনাব্রির শট লেভারকুজেনের পোস্টে লেগে ফিরে আসে।

পরের মিনিটেই পাল্টা আক্রমণে বায়ার্নের জালে বল জড়িয়ে লেভারকুজেনকে উচ্ছাসে ভাসান লিয়ন বেইলি। ৩৪ মিনিটে লড়াইয়ে ফেরে বায়ার্ন। স্বাগতিকদের সমতায় ফেরান টমাস মুলার। জার্মান লিগে ১৩৫৬ মিনিট পর গোলের দেখা পেলেন তিনি। এর আগে লিগে এতটা দীর্ঘ সময় কখনোই গোলশূন্য থাকতে হয়নি জার্মান স্ট্রাইকারকে।

leon bailey cropped 1

বায়ার্ন মিউনিখের সমতায় ফেরার আনন্দ বাসাতে মিশে গেছে একটু পরই। প্রথমার্ধের শেষ বাঁশির আগেই ফের কেঁপে ওঠে স্বাগতিকদের জাল। আবারো বায়ার্নের জমদূতরূপে হাজির হলেন বেইলি। এই গোলটাও লেভারকুজেন পেয়েছে বেইলি-কেভিন রসায়নে। অতিথিদের দ্বিতীয় গোলটার আর শোধ দিতে পারেনি বায়ার্ন।

সমতায় ফিরতে দ্বিতীয়ার্ধে অসংখ্য সুযোগ পেয়েছিল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। মুহুর্মুহু আক্রমণ করলেও ফরওয়ার্ডদের ব্যর্থতা ও গোলপোস্টের নাটকীয়তায় তা আলোর মুখ দেখেনি। জিন্যাব্রি, মুলারদের সুযোগ মিসের মহড়ায় শেষ দিকে যোগ দেন ফিলিপ্পে কুতিনহো। এমনকি ম্যাচের শেষ কয়েক মিনিট দশজনের লেভারকুজেনকে পেয়েও ফায়দা নিতে পারেনি বায়ার্ন।

আসলে বায়ার্নের কপালে হয়তো পয়েন্ট লেখাই ছিলো না। আর তা না হলে কেন ৭৭ মিনিটে দ্বিতীয়বার লেভারকুজেনের পোস্টে লেগে বল ফিরে আসবে! এবার গোলবঞ্চিত হয়েছেন রিয়ন গোরেৎস্ক। চার মিনিট পর জনাথন তাহ লালকার্ড দেখে মাঠছাড়া হন। যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে তৃতীয়বার বায়ার্নের সঙ্গে বেরসিক আচরণ করে গোলপোস্ট!