advertisement
আপনি দেখছেন

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে প্যারিস সেন্ট জার্মেইর (পিএসজি) ড্র ভাগ্য ভালো নয়। প্রতিবারই শেষ ষোলোতেই কঠিন প্রতিপক্ষের মুখোমুখি হতে হয় তাদের। এবারও ধারাটা অব্যাহত থাকল। নক আউট পর্বের শুরুতেই পিএসজি প্রতিপক্ষ হিসেবে পেল শক্তিশালী জার্মান ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে।

luis figo poses in ucl draw

আজ সুইজারল্যান্ডের নিয়নে উৎকণ্ঠার ড্র ডর্টমুন্ডের মুখোমুখি করে দিয়েছে পিএসজিকে। কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে কঠিন প্রতিপক্ষ পেয়েছে ফেভারিট রিয়াল মাদ্রিদও। টুর্নামেন্টের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল দলটি শেষ ষোলোতে মোকাবেলা করবে ইংলিশ লিগ চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটিকে।

মাদ্রিদের আরেক ক্লাব অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের জন্যও অপেক্ষা করছে অগ্নিপরীক্ষা। শেষ আটে যেতে হলে তাদের টপকাতে হবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল বাধা। দুটি মহারণই স্প্যানিশ বনাম ইংলিশ শক্তির প্রদর্শনীর লড়াই। স্বস্তিতে থাকার উপায় নেই ইংল্যান্ডের আরেক ক্লাব চেলসিরও।

উদ্বেগের ড্র সাবেক চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখের সামনে ফেলে দিয়েছে পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটিকে। সেই তুলনায় কিছুটা নির্ভার থাকতে পারে টটেনহাম হটস্পার। শেষ ষোলোতে জার্মান আরেক ক্লাব লাইপজিগকে মোকাবেলা করবে হোসে মরিনহোর টটেনহাম।

তূলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষ পেয়েছে শিরোপা প্রত্যাশি বার্সেলোনাও। কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিটের জন্য লিওনেল মেসিরা লড়বেন ইতালিয়ান ক্লাব নাপোলির বিরুদ্ধে। স্পেনের আরেক ক্লাব ভ্যালেন্সিয়ার প্রতিপক্ষ আটালান্টা। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জুভেন্টাস প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছে ফরাসি ক্লাব অলিম্পিক লিওঁকে।

আগামী ১৮, ১৯ ও ২৫ ফেব্রুয়ারি শেষ ষোলোর প্রথম লেগ অনুষ্ঠিত হবে। ১০, ১১ ও ১৮ মার্চ ফিরতি লেগ মাঠে গড়াবে। আগামী ৩০ মে ইস্তাম্বুলে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। সবশেষ এই মাঠে ফাইনাল হয়েছিল ২০০৫ সালে। যেখানে থ্রিলার ফাইনালে এসি মিলানকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় লিভারপুল।

শেষ ষোলোতে মুখোমুখি যারা:

নাপোলি-বার্সেলোনা

টটেনহাম-লাইপজিগ

আটালান্টা-ভ্যালেন্সিয়া

চেলসি-বায়ার্ন মিউনিখ

অলিম্পিক লিওঁ-জুভেন্টাস

অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ-লিভারপুল

রিয়াল মাদ্রিদ-ম্যানচেস্টার সিটি

বরুসিয়া ডর্টমুন্ড-প্যারিস সেন্ট জার্মেই