advertisement
আপনি দেখছেন

নিজেদের মাঠে খেলার সবচেয়ে বড় সুবিধা দর্শক শক্তি। পরিচিত দর্শকদের সামনে খেললে বাড়তি অনুপ্রেরণা পাওয়া যায়। যা ম্যাচে এগিয়ে রাখে স্বাগতিক দলগুলোর বিরুদ্ধে। কিন্তু লড়াইটা যখন এল ক্লাসিকো তখন মহারণের ভেন্যু প্রভাবক কোনো ইস্যু নয়। বার্সেলোনা অধিনায়ক লিওনেল মেসির ভাবনা এমনই।

messi fc barcelona captain

বাংলাদেশ সময় বুধবার রাত একটায় ঘরের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে রিয়াল মাদ্রিদকে আতিথেয়তা দেবে বার্সেলোনা। দুই দলের জন্যই এই ম্যাচটা স্পানিশ লিগের শীর্ষস্থান মজবুত করার উপলক্ষ্য। মহারণের আগে স্বাগতিক হিসেবে প্রত্যাশার বাড়তি চাপের মধ্যে আছে কাতালান ক্লাবটি। কৌশলে তা কমানোর চেষ্টা করছেন মেসি।

দীর্ঘ নয় বছর পর টেবিলে সমান পয়েন্ট নিয়ে মুখোমুখি হচ্ছে বার্সেলোনা। যা ম্যাচের রোমাঞ্চে যোগ করেছে অনন্য মাত্রা। কিন্তু সাম্প্রতিক লড়াইয়ের ফলগুলো বড্ড এক পেশে। লিগে টানা ছয় ম্যাচ ধরে বার্সেলোনাকে হারাতে পারেনি রিয়াল। এবার কি বৃত্ত ভাঙতে পারবে তারা? উত্তরটা দূরে নয়।

কাজটা কঠিন। সেটা কিছুটা সহজ করে দিতে পারে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ১১ ম্যাচে অপরাজিত থাকাটা। বার্সেলোনাও তাই সতর্ক। হোক না নিজেদের মাঠে খেলা তাতে কি। একটু চাপ থেকেই মেসি বলেছেন, ‘ঘরের মাঠে খেলা হলে আক্রমণের জন্য বাড়তি তাড়না থাকে। কিন্তু আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।’

কেন সতর্ক থাকতে হবে সেটার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন বার্সেলোনা অধিনায়ক। বলেছেন, ‘ওরা ন্যু ক্যাম্পে অন্যরকম খেলে। কিছুটা নিচের দিকে নেমে থাকে; জমাট বেঁধে থাকে। পাল্টা আক্রমণ করার চেষ্টা করে। ওরা পাল্টা আক্রমণে যথেষ্ঠ শক্তিশালী। ওদের দলে বেশ কজন গতিশীল ফুটবলার আছেন।’

মেসির মতে রিয়াল মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে খেলা কিছুটা হলেও তাদের জন্য সহজ। বার্সা অধিনায়ক দাবি করলেন নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে খেলাই বেশি কঠিন! মেসি বলেছেন, ‘সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে আমরা পুরো দেড় ঘণ্টা সমান সমান খেলি। কিন্তু এখানে (ন্যু ক্যাম্পে) খেলা কিছুটা কঠিন এবং জটিল।’