advertisement
আপনি দেখছেন

পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে খেলোয়াড় হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন ইকার ক্যাসিয়াস। জাতীয় দল স্পেন এবং ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ দুই ভুবনেই নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়েছেন এই গোলরক্ষক। জাতীয় দল থেকে অবসর নিলেও ক্লাব ক্যারিয়ারে এখনো খেলে যাচ্ছেন ক্যাসিয়াস। যে কোনো সময় সব ধরনের ফুটবলকে বিদায় বলতে পারেন তিনি।

iker casillas porto

কিন্তু তার আগেই ফুটবল সংগঠক হিসেবে নিজের পরিচিত তুলে ধরতে পারেন বিশ্বকাপজয়ী এই গোলরক্ষক। ক্যাসিয়াস স্বপ্ন দেখছেন রয়্যাল স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের (আরএফইএফ) সভাপতি হওয়ার। সোমবার প্রেসিডেন্ট হিসেবে লড়াই করার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন এফসি পোর্তোর এই গোলরক্ষক।

আপাতত পর্তুগিজ ক্লাবের সঙ্গেও নেই ক্যাসিয়াস। হৃদরোগের সমস্যার কারণে ছুটিতে আছেন তিনি। ধরে নেওয়া হচ্ছে ফুটবল ক্যারিয়ারই এক প্রকার শেষ হয়ে গেছে ৩৮ বছর বয়সী এই তারকার। কারণ গত বছর এপ্রিলের পর আর মাঠে নামেননি তিনি। মে মাসে অনুশীলন চলাকালীন বুকে ব্যথা অনুভব করেন ক্যাসিয়াস। এরপর থেকেই সাময়িক নির্বাসন চলছে তার।

পর্তুগিজ মিডিয়ার গুঞ্জন, খেলোয়াড় হিসেবে নয়, ক্যাসিয়াস ফিরতে পারেন পোর্তোর কোনো কোচিং স্টাফ হিসেবে। কোন ভূমিকায় তার প্রত্যাবর্তন হবে সেটা বলে দেবে সময়। কার্যত আরএফইএফ এর বর্তমান প্রেসিডেন্ট লুইস রুবিয়ালসকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন রিয়াল মাদ্রিদের প্রাক্তন অধিনায়ক। এ বছরের শেষ দিকে স্পেন ফুটবলের নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে।

এই লড়াইয়ে নামার অগ্রিম ঘোষণা দিয়ে সোমবার টুইটারে ক্যাসিয়াস লিখেছেন, ‘হ্যাঁ, স্প্যানিশ ফুটবল এসোসিয়েশনের যখন নির্বাচন হবে তখন আমি সভাপতি হিসেবে লড়াই করতে চাই। আমরা এক সঙ্গে কাজ করতে চাই এবং আমাদের ফেডারেশনকে বিশ্বসেরার পর্যায়ে নিয়ে যেতে চাই।’ ক্যাসিয়াসের এই স্বপ্নটা পূরণ হবে কিনা সেই প্রশ্নের উত্তর ভবিষ্যতের জন্য তোলা থাকল।

২০১৫ সালে স্পেন ছাড়ার আগে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ৭২৫টি ম্যাচ খেলেছেন ক্যাসিয়াস। লস ব্ল্যাঙ্কোসদের হয়ে তিনটি উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ এবং পাঁচটি লা লিগা জিতেছেন তিনি। তার নেতৃত্বে ২০১০ সালে স্বপ্নের বিশ্বকাপ জিতেছে স্পেন। শুধু তাই নয়, স্পেনের হয়ে ২০০৮ ও ২০১২ সালে ব্যাক টু ব্যাক ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফির স্বাদ পেয়েছিলেন অধিনায়ক ক্যাসিয়াস।

sheikh mujib 2020