advertisement
আপনি পড়ছেন

মৌসুমের প্রথম এলক্লাসিকোতে বার্সাকে হারিয়ে উড়ছিল রোনালদোরা। কিন্তু এই জয়ের রেশ কাটতে না কাটতেই বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে ভলফসবুর্গের বিপক্ষে ২-০ গোলে হেরেছে রিয়াল মাদ্রিদ। অখ্যাত ভলভসবুর্গের বিপক্ষে হারের পর বিশ্বজুড়ে হতাশ হয়েছেন মাদ্রিদ সমর্থকরা।

Madrid lost

রিয়াল মাদ্রিদের এই হার সইতে পারছেন না দলটির কোচ জিনেদিন জিদান। জিদান শিশ্যরা অভিজ্ঞতা, খেলোয়াড়ি সামর্থ্য, রেকর্ড সবক্ষেত্রেই এগিয়ে থেকেও হারতে হয়েছে। ইউরোপ-সেরার দৌড়ে এ পর্যন্ত ৩২ বার কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এরমধ্যে জয় পেয়েছে ২৬ বার। এবার কিনা পুচকে ভলভসবুর্গের বিপক্ষে হেরে খাদের কিনারায় রোনালদোরা। প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে ফিরতি লেগে ঘরের মাঠে ৩-০ গোলে জিততে হবে রিয়াল মাদ্রিদকে।

ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে গিয়েও যেতে পারেনি রিয়াল মাদ্রিদ। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ভলফসবুর্গের জালে পাঠানো বল অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে যায়। তবে বড় সুযোগটা পেয়েছিলেন করিম বেনজেমা। প্রতিপক্ষের গোলরক্ষককে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি তিনি।

তবে ম্যাচের ১৭ মিনিটেই পেনাল্টি থেকে সহজ গোল করেন ভলফসবুর্গের রিকার্ডো রদ্রিগেজ। এই গোলেই চ্যাম্পিয়নস লিগে অপরাজিত থাকার রেকর্ডব্রেক হয় রিয়াল গোলরক্ষকের। ভলফসবুর্গ দ্বিতীয়বার আঘাত হানেন ম্যাক্সিমিলিয়ান আর্নল্ড। দুর্দান্ত গোলে ব্যাবধার ২-০ করেন তিনি। এরপর বেনজেমা চোট পেয়ে মাঠ ছাড়লে এলোমেলো ফুটবল খেলে রিয়াল। পরে আর খেলায় ফিরতে পারেনি বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় এবং দামি ক্লাবটি।

হারের পর জিদান বলেন, বার্সেলোনার বিপক্ষে এলক্লাসিকোতে ম্যাচটি যেভাবে খেলেছিলাম, এই ম্যাচটার পরিকল্পনাও তেমন ছিল। প্রথমার্ধের কিছু ভুল আমাদের হতাশ করেছে। তবে ফিরতি লেগে আমরা সর্বোচ্চটা উজাড় করে দিতে চাই।

 
আপনি আরো পড়তে পারেন

ঘরের মাঠে রিয়ালের কাছে বার্সার হার

হারতে হারতে বেঁচে গেলো ব্রাজিল

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে কে কার প্রতিপক্ষ?