advertisement
আপনি দেখছেন

দলের প্রধান স্ট্রাইকার রবার্ট লেভানডফস্কি ইনজুরি নিয়ে ছিটকে গেছেন এক মাসের জন্য। তাতেও জয়ের ধারায় বায়ার্ন মিউনিখ। প্রত্যাশিত জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে বাভারিয়ান ক্লাবটি। শনিবার রাতে জার্মান বুন্দেসলিগায় হফেনহেইমকে তাদেরই মাঠে ৬-০ গোলে চূর্ণ করেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

bayern celebrate their opening goalফাইল ছবি

বায়ার্ন মিউনিখের বড় জয়ের নায়ক ফিলিপ্পে কুতিনহো। ম্যাচের ছয় গোলের দুটিই করেছেন ব্রাজিলিয়ান এই মিডফিল্ডার। দলের বাকি গোলগুলো করেছেন লিয়ন গোরেৎস্ক, সার্জি জিন্যাব্রি, জসুয়া জিরকজি ও জসুয়া কিমিচ। প্রথমার্ধে চার গোল করা অতিথি দলটি বিরতির পর করেছে আরো দুটি।

জার্মান লিগের চলতি আসরে এটা ষোড়শ জয় বায়ার্ন মিউনিখের। দাপুটে এই জয়ে লিগ শীর্ষস্থান আরো অটুট করে নিল বাভারিয়ান জায়ান্টরা। ২৪ ম্যাচে ৫২ পয়েন্ট হ্যান্স ফ্লিকের দলের। এক ম্যাচ কম খেলে ৪৮ পয়েন্ট নিয়ে যথারীতি দুইয়ে থাকল লাইপজিগ। তাদের সমান পয়েন্ট তিনে থাকা বরুসিয়া ডর্টমুন্ডেরও। ২৪ ম্যাচ খেলা দলটা গোলগড়ে পিছিয়ে আছে।

ম্যাচটা ঠিকঠাক শুরু হয়নি। দর্শকরাও আরাম করে বসতে পারেননি। এর মধ্যেই রেফারির গোলের বাঁশি। দুই মিনিটেই বায়ার্নকে উচ্ছ্বাসে ভাসান জিনাব্রি। ৬২ মিনিটে গোল উৎসবের ইতি টানেন গোরেৎস্ক। বিরতির আগে ও পরে দুটি গোল করেন কুতিনহো। তাতে ৪৭ মিনিটে স্কোর লাইন ৫-০; ৩৩ মিনিটে ৪-০!

ম্যাচে গোল পাননি টমাস মুলার। তবে সতীর্থদের দুই গোলে অবদান রেখে নায়কের ভূমিকাতে থাকলেন তিনি। বায়ার্নের জয়ের ব্যবধান বাড়তে পারতো। সেটা হয়নি ৭১ মিনিটে গোরেৎস্কর শট হফেনহেইমের পোস্টে লেগে ফিরে আসলে। এর সাত মিনিট পরই ঘটে গেল অনাকাঙ্খিত ঘটনা। গ্যালারিতে বাজে স্লোগান দেন বায়ার্নের দর্শকরা।

তাতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন হফেনহেইম খেলোয়াড়রা। মাঠ থেকে উঠে যান তারা। পরে বায়ার্নও মাঠ ছাড়ে। এনিয়ে কুড়ি মিনিট খেলা বন্ধ থাকে। পরে অবশ্য ঠিকঠাক বল গড়িয়েছে মাঠে। রেফারি দিয়েছেন শেষ বাঁশি।

sheikh mujib 2020