advertisement
আপনি দেখছেন

খবরটা রীতিমতো নাড়িয়ে দিয়েছিল ইংলিশ ফুটবলকে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন আর্সেনাল প্রধান কোচ মিকেল আর্তেতা। এই খবর শোনার পর পরই স্থগিত করে দেওয়া হয় আর্সেনালের সব ধরনের ফুটবলীয় কার্যক্রম। সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয় যুক্তরাজ্যের সব ফুটবল প্রতিযোগিতা।

mikel arteta arsenal 2019 2020

সারা বিশ্বে এ পর্যন্ত পাঁচ লাখেরও বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মৃতের সংখ্যা ২৪ হাজার ছাড়িয়েছে। সেই তালিকায় নাম এসেছিল আর্তেতারও। অবশেষে এসেছে স্বস্তির খবর। এ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে আক্রান্ত হওয়া আর্তেতা ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। কিন্তু ভয়টা কাটেনি। আর্সেনাল কোচ বর্ণনা করলেন বিভীষিকাময় সেই দিনগুলোর কথা।

শুক্রবার ৩৮ বছর বয়সী আর্তেতা বলেছেন, ‘আমি এখন পুরোপুরি সুস্থ। যখন ক্লাব (আর্সেনাল) আমাকে ডেকে পাঠায় তখন আমার মধ্যে কিছুটা (করোনাভাইরাসের) লক্ষণ দেখা দিয়েছিল। আমি জানি না কীভাবে এটা হলো। সম্ভবত অলিম্পিয়াকস ম্যাচের মুহূর্তে আক্রান্ত হতে পারি। কিন্তু ওই ম্যাচের পর থেকেই আমার খারাপ লাগতে শুরু করে।’

‘যেদিন থেকে খারাপ লাগছিল এর পর দিন ম্যানচেস্টার সিটির বিরুদ্ধে আমাদের ম্যাচ ছিল। কিন্তু আমি চিকিৎসকের কাছে যাই এবং তিনি আমাকে বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। আমি কয়েকজনকে বলছিলাম, এখন আমাদের জন্য খেলাটা ঝুঁকিপূর্ণ। দলে আমার মধ্যেই প্রথম লক্ষণ দেখা দেয় এবং এটা পরিষ্কার।’

‘ক্লাবের সব ফুটবলার একে অন্যের সঙ্গে মেলামেশা করেন। এতে করে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়তে পারে। কাজেই আমরা এমন কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারি না, যা আমাদের বিপদ ডেকে আনে। কিন্তু সামনে আবার ম্যানচেস্টার সিটি ম্যাচ ছিল, আমাদের দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া ছাড়া বিকল্প ছিল না।’

‘এরপর আপনি যখন সুস্থ হবেন, খুব ভালো লাগবে। যেমনটা আমার লাগছে। এটা খুব মারাত্মক একটা রোগ। আপনি তখন অন্য মানুষদের কথাও ভাববেন যারা আপনার সংস্পর্শে এসেছে। ভয়টা এখান থেকেই কাজ করছিল। তাদের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়া এবং মুঠোফোন ছাড়া যোগাযোগের কোনো উপায় ছিল না। তাদের খুব মিস করেছি।’

‘আমার কাছে এটা সাধারণ একটা ভাইরাসের মতোই মনে হয়েছিল। সম্ভবত তিন-চারটা দিন আমার খুব বাজেভাবে কেটেছিল। শারীরিক তাপমাত্রা কিছুটা বেড়ে গিয়েছিল। শুকনো কাশি হচ্ছিল এবং আমার বুকে কিছুটা অস্বস্তি লাগছিল। আমার লক্ষণগুলো এমনই ছিল।’

‘আমার বাসায় তিনটা বাচ্চা আছে। ওরা সুস্থ আছে। যদিও ওদের নিয়ে আমি খুব চিন্তিত ছিলাম। বাসায় ওভাবে থাকাটা খুব কঠিন ছিল। আমি অনেক উল্টা-পাল্টা কথা চিন্তা করছিলাম। যা হোক, সৃষ্টিকর্তার কাছে ধন্যবাদ, বাচ্চাদের কিছু হয়নি। আমরা প্রত্যেকে এখন সুস্থ আছি।’

প্রসঙ্গত, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ স্থগিত হওয়ার আগ পর্যন্ত পয়েন্ট তালিকার নয়-এ আছে আর্সেনাল। চারে থাকা চেলসির সঙ্গে তাদের দূরত্ব আট পয়েন্টের।