advertisement
আপনি দেখছেন

আর্জেন্টান ক্লাব ইন্ডিপেন্ডেন্টির হয়ে হাতেখড়ি। ২০০৩ সালে এই ক্লাবের হয়েই পেশাদার ফুটবল শুরু করেন সার্জিও অ্যাগুয়েরো। তিন বছর পর তিনি পাড়ি জমান স্প্যানিশ ফুটবলে; নাম লেখান অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে। এখানেই পাঁচ বছর কাটিয়েছেন আর্জেন্টাইন তারকা। মাদ্রিদে থেকেই তিনি নিজেকে ইউরোপের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

sergio aguero manchester city 2019 2020

ম্যানচেস্টার সিটির অর্থের ঝনঝনানি সহ্য হয়নি অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের। অ্যাগুয়েরো ইংলিশ জায়ান্টদের কাছে বিক্রি করে দেয় স্প্যানিশ ক্লাবটি। সিটিজেনদের হয়ে নয় বছর ধরে খেলছেন ৩২ বছর বয়সী এই তারকা। এই ক্লাবের সঙ্গে আরো এক বছরের চুক্তি আছে তার। নতুন চুক্তির প্রস্তাবও এসেছে। যদিও গুঞ্জন চলছে আগামী বছর আর্জেন্টাইন ফুটবলে ফিরে যাওয়ার কথা ভাবছেন অ্যাগুয়েরো।

কিন্তু ‘ঘরে’ ফেরার আগে তাকে লা লিগায় প্রত্যাবর্তনের পরামর্শ দিলেন উরুগুয়েন কিংবদন্তি মিডফিল্ডার ডিয়েগো ফোরলান। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে তিনি ফোরলানের সঙ্গী হিসেবে ছিলেন চার বছর। স্বাভাবিকভাবেই দুজনের সখ্যতা জমে ওঠে তার। সেই অধিকার থেকেই অ্যাগুয়েরোকে মাদ্রিদে ফেরার আহ্বান জানালেন ২০১০ বিশ্বকাপের সেরা ফুটবলার।

aguero and forlan

এনিয়ে মঙ্গলবার ফোরলান বলেছেন, ‘অ্যাগুয়েরোকে আবার লা লিগায় দেখতে পারাটা দারুণ হবে। ও যখন প্রথমবার স্পেনে এসেছিল তখন খুব তরুণ ছিল। বয়স কম হলেও ভালো ফুটবল খেলতো। অ্যাগুয়েরো ফিরলে লা লিগা আরো আকর্ষণীয় হবে।’ ফোরলান-অ্যাগুয়েরোর সাবেক দল অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ এই মুহূর্তে লিগ টেবিলের তিনে আছে। তাদের সমান ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে চারে আছে সেভিয়া।

অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে পাঁচ বছরের অধ্যায়ে ২৩০ ম্যাচে ১০০ গোল করেছেন অ্যাগুয়েরো। স্প্যানিশ ক্লাবটির হয়ে তিনি জিতেছেন ইউরোপা লিগ ও উয়েফা সুপার কাপের ট্রফি। আর ম্যানচেস্টার সিটির জার্সিতে ৩৭০ ম্যাচে ২৫৪ গোল আছে অ্যাগুয়েরো। তিনিই এখন ক্লাবের সর্বোচ্চ গোলদাতা। সিটির হয়ে এ পর্যন্ত চারটি ইংলিশ লিগ, পাঁচটি লিগ কাপ এবং একটি এফএ কাপ জিতেছেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার।

sheikh mujib 2020