advertisement
আপনি দেখছেন

মেস্তায়ায় ম্যাচজুড়ে দুর্দান্ত খেলল পোর্তো। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে চেলসি ডিফেন্ডারদের প্রায় নাভিঃশ্বাস উঠিয়ে ফেলেছিল স্বাগতিক শিবির। কিন্তু একের পর এক সুযোগ তৈরি করেও কাঙ্খিত গোলের দেখা পেল না পর্তুগিজ ক্লাবটি। উল্টো দুই অর্ধে দুই গোল খেয়ে হেরে বসল ম্যাচ। এই হারে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বিদায়ের সুর বেজে উঠল পোর্তোর।

chelsea porto celebrate 2020 21

বুধবার রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ আটের প্রথম লেগের ম্যাচে পোর্তোকে ২-০ গোলে হারিয়েছে চেলসি। দারুণ এই জয়ের ফলে সেমিফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেল টমাস টুখেলের দল। আগামী মঙ্গলবার এখানেই দ্বিতীয় লেগের ম্যাচটা খেলবে পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটি। কারণ করোনাভাইরাস আতঙ্কের কারণে দুই লেগের ম্যাচই সেভিয়ার মাঠে স্থানান্তর করা হয়েছে।

সেমিফাইনালে যেতে ফিরতি লেগে এক গোলের ব্যবধানে হারলেও সমস্যা হবে না চেলসির। কারণ মূল কাজটা যে প্রথম লেগেই সেরে ফেলল তারা! তবে চেলসির জয় নিয়ে সংশয় ছিল বেশ। কারণ গেল শনিবার ওয়েস্টব্রম অ্যালবিয়নের বিরুদ্ধে ৫-২ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছিল তারা। ম্যাচটাও তারা খেলেছিল নিজেদের মাঠে। সেই দল নিরপেক্ষ ভেন্যুতে দারুণভাবেই ঘুরে দাঁড়াল।

mason mount chelsea 2020 21

গত জানুয়ারিতে প্রধান কোচ ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ডকে বরখাস্ত করেন চেলসির মালিক রোমান আব্রামোভিচ। নতুন কোচ হিসেবে টুখেলকে নিয়োগ দেন রাশান ধনকুবের। জার্মান এই কোচের ছোঁয়ায় বদলে যায় ব্লুজরা। সবধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ১৪ ম্যাচ অজেয় থাকে চেলসি। অবশেষে তাদের দর্পচূর্ণ হয় ওয়েস্টব্রমের কাছে। অবশ্য ছন্দে ফিরতে সময় লাগল না ইংলিশ জায়ান্টদের।

এই ম্যাচের ফল ব্যতিরেকে মাঠের বাইরের একটা ইস্যু ছিল। দেখার বিষয় ছিল কেপা আরিসাবালাগা ও অ্যান্তনিও রুদিগার এক সঙ্গে উদযাপন করেন কিনা। কারণ গেল মঙ্গলবার এই দুজন সংঘাতে জড়িয়ে পড়েন। কাল রাতে তাদের উদযাপন দেখে কে বলবে অনুশীলনে তাদের মধ্যে কিছু একটা হয়েছে! তারা প্রথমবার উদযাপন করেন ম্যাচের ৩২ মিনিটে। চেলসিকে এগিয়ে দেন ম্যাসন মাউন্ট।

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে এটাই প্রথম গোল তার। তাতেই গড়লেন দারুণ একটা রেকর্ড। চেলসির সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে ইউরোপের মঞ্চে নকআউট পর্বে গোল করেছেন ইংলিশ মিডফিল্ডারের। কাল রাতে মাউন্টের বয়স ছিল ২২ বছর ৮৭ দিন। চেলসি জিততে এই গোলটাই যথেষ্ঠ ছিল। কিন্তু ৮৫ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন বেন চিলওয়েল। চেলসি দ্বিতীয় গোলটা পেতে পারতো এক মিনিট আগেই। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচের শট ফিরে আসে পোর্তোর পোস্টে লেগে।