advertisement
আপনি দেখছেন

চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। ইউরোপের রুপালি কাপ জয়ের গৌরব আছে তিনবার। স্পেনের সঙ্গে যৌথভাবে ইউরোর সবচেয়ে সফল দল জার্মানি। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে ধুঁকছে তারা। গত বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে জার্মানরা। উয়েফা নেশনস লিগেও বাজে পারফর্ম। এসবকিছুর প্রভাব একটা ম্যাচে হাড়ে হাড়ে টেরে পেয়েছে জার্মানি। গেল বছরের নভেম্বরে স্পেনের কাছে তারা বিধ্বস্ত হয়েছে ৬-০ গোলে!

euro 2020 germany

সবমিলিয়ে জার্মান-যন্ত্র প্রায় নিষ্ক্রিয় হয়ে গেছে। মরচে ধরা এসব যন্ত্রপাতি ও কলকব্জা নাড়াচ্ছেন জোয়াকিম লো। এবারের ইউরো শেষে ১৫ বছরের জার্মানি অধ্যায় শেষ হচ্ছে তার। স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়াচ্ছেন তিনি। টুর্নামেন্ট শেষে দলটির দায়িত্ব নেবেন ২০২০ সালে বায়ার্ন মিউনিখকে ট্রেবল জেতানো হানসি ফ্লিক। তার আগে বর্তমান কোচ লো’কে বিদায়ী অর্ঘ্য হিসেবে ইউরো ট্রফি জেতাতে মরিয়া জার্মানরা।

প্রধান কোচ - জোয়াকিম লো: জার্মানির প্রধান কোচ ইয়ুর্গেন ক্লিন্সম্যানের সহকারী ছিলেন লো। ২০০৬ সালে জার্মানরা বিশ্বকাপ জিততে ব্যর্থ হওয়ায় প্রধান কোচের দায়িত্ব পেয়ে যান তিনি। লো’র অধীনে ধীরে ধীরে গুছিয়ে ওঠে জার্মানি। ২০০৮ সালে ইউরো কাপের ফাইনাল, ২০১০ সালে বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল, অতঃপর ২০১৪ সালে জার্মানিকে স্বপ্নের বিশ্বকাপের চতুর্থ শিরোপা জেতান লো।

এরপর আবার সেই আগের জায়গায় ফিরে যায় জার্মানরা। বিশ্বকাপ পরবর্তী নিজেদের হারিয়ে খুঁজতে থাকা তারা। ২০১৬ ইউরোর সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেয় লো’র দল। দুই বছর পর বিশ্বকাপে তো আরো বাজে অবস্থা। নক আউট পর্বে উঠতেই ব্যর্থ হয় তারা। এরপর আর ফেরা হয়নি। জার্মানদের ফেরার মঞ্চ হতে পারে চলমান ইউরো। এই টুর্নামেন্টের জন্য দলে বেশ কয়েকজন অভিজ্ঞ ফুটবলারকে ডেকেছেন লো। তাতে করে ভালোই সমালোচনা শুনতে হচ্ছে তাকে। নিন্দুকদের এবং দুঃসময়কে জবাব দিতে জার্মান কোচের শেষ ভরসা এখন এই টুর্নামেন্ট।

প্রধান তারকা - ম্যানুয়েল ন্যুয়ার: জার্মানির শক্তি অনেকটাই কমে গেছে। মরচে ধরেছে তাদের পারফরম্যান্সে। কিন্তু একজন এখনো আছেন সেই আগের মতোই। তিনি ম্যানুয়েল ন্যুয়ার। জার্মানির শেষ প্রহরী। এই মুহূর্তে দলের সবচেয়ে বড় শক্তির উৎস তিনিই। ৩৫ বছর বয়সেও প্রতিপক্ষ ফরওয়ার্ডদের ঘুম হারাম করে দিচ্ছেন ন্যুয়ার। তার নেতৃত্বেই এবারের ইউরো খেলবে জার্মানি। তার অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সের সুবাদে গত বছর ট্রেবল জিতেছিল বায়ার্ন মিউনখ। এইবারের ইউরো শেষে তিনি অবসরে যেতে পারেন বলে খবর বেরিয়েছে। তবে যাওয়ার আগে শেষটা রাঙাতে চান ন্যুয়ার।

তরুণ তুর্কি - জামাল মুসিয়ালা: গত মৌসুমে বায়ার্ন মিউনিখের জার্সিতে পেশাদার ফুটবলার হিসেবে অভিষেক হয় জামাল মুসিয়ালার। চলমান ইউরো টুর্নামেন্টে আলো ছড়িয়ে নজরে আসতে পারেন ১৮ বছর বয়সী এই তরুণ। তার বয়সী ফুটবলারদের মধ্যে তিনিই সবার আগে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছেন। চেলসির একাডেমি থেকে উঠে আসা জামাল নিজের জাত চেনাতে চান ইউরোতে।

গ্রুপপর্ব: এমনিতেই খুব বাজে সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে জার্মানি। তাদের দুশ্চিন্তা কয়েক গুণ বাড়িয়ে দিয়েছে ইউরোর গ্রুপপর্বের ড্র। যেখানে ডেথগ্রুপে পড়েছে তারা। নক আউট পর্বে উঠতে হলে তাদের অগ্নিপরীক্ষা দিতে হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল ও সাবেক চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের বিরুদ্ধে। পুনর্জন্ম হওয়া হাঙ্গেরিকেও হালকাভাবে দেখলে চলবে না। আজ ‘এফ’ গ্রুপের প্রথম ম্যাচে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে জার্মানরা। তাদের জন্য একটা সুবিধা আছে। আসরে স্বাগতিক দেশগুলোর একটি তারা এবং গ্রুপের সবকটি ম্যাচ জার্মানি খেলবে ঘরের মাঠ মিউনিখে। যা তাদের নক আউট পর্বে ওঠার পথ মসৃণ করতে পারে।

সম্ভাব্য একাদশ: গোলরক্ষক: ন্যুয়ার; ডিফেন্ডার: ক্লোস্টারম্যান, হ্যামেলস, রুদিগার, গোসেনস; মিডফিল্ডার: ক্রুস, কিমিখ, গোরেৎস্ক, সানে; ফরওয়ার্ড: মুলার, জিন্যাব্রি।
সেরা সাফল্য: চ্যাম্পিয়ন (১৯৭২, ১৯৮০, ১৯৯৬)

ফিফা র্যাঙ্কিং: ১২

জার্মানি ম্যাচসূচি:

১৫ জুন: জার্মানি-ফ্রান্স (মিউনিখ)
১৯ জুন: জার্মানি-পর্তুগাল (মিউনিখ)
২৩ জুন: জার্মানি-হাঙ্গেরি (মিউনিখ)