advertisement
আপনি দেখছেন

জমজমাট মহারণের ইঙ্গিত মিলেছিল আগেই। অনুমানটাই সত্যি হয়েছে। রবিরাতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে থ্রিলার উপহার চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার সিটি। দুই চ্যাম্পিয়নের লড়াইটা হয়েছে সেয়ানে সেয়ানে। লিভারপুলের মাঠ অ্যানফিল্ড স্টেডিয়ামে শেষ পর্যন্ত মহারণ ২-২ গোলে অমীমাংসিত থেকে গেছে।

guardiola and klopp 2019

ম্যাচের প্রথমার্ধ কেটেছে গোলখরায়। চারটি গোলই হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। স্বাগতিক লিভারপুল লিড নিয়েছিল দুবারই। প্রতিবারই ঘুরে দাঁড়িয়েছে সিটি। রোমাঞ্চর এই লড়াইয়ে কী ছিল না! এই লড়াই শেষে রেফারিং নিয়ে গুরুতর অভিযোগ তুলেছেন সিটি কোচ পেপ গার্দিওলা। তার মতে লাল কার্ড দেখতে পারতো লিভারপুল।

কিন্তু ম্যাচটা লাল দুর্গ অ্যানফিল্ডে বলেই রেফারি সেই দুঃসাহস দেখাননি। যা মানতে পারছেন না স্প্যানিশ কোচ। এনিয়ে ম্যাচ শেষে ক্ষোভ প্রকাশ করেছন অভিজ্ঞ এই কোচ। ঘটনা ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে। বার্নাডো সিলভাকে মারত্মক ট্যাকল করেন লিভারপুল ডিফেন্ডার জেমস মিলনার। কিন্তু রেফারি শুধু ফাউলের বাঁশি বাজিয়েছেন।

bernardo and guardiola

গার্দিলার দাবি, হলুদ কার্ড দেখানো উচিত ছিল মিলনারকে। তাহলে সেটা হতে পারতো লিভারপুল তারকার দ্বিতীয় হলুদ। স্বাগতিকরা দশ জনে নেমে এলে ম্যাচের ফলটাও পাল্টাতে পারতো বলে মনে করেন গার্দিওলা। কোচদের এ ধরনের অভিযোগ অবশ্য খুব স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু মিলনার অ্যানফিল্ডের ঘরের ছেলে বলেই তা হয়নি। উদ্বেগের কারণ এটাই।

ম্যাচ শেষে স্কাই স্পোর্টকে গার্দিওলা বলেছেন, 'এটা পরিষ্কার হলুদ কার্ড। কিন্তু এটা অ্যানফিল্ড, এটা ওল্ড ট্রাফোর্ড। এই অবস্থায় (মিলনারের জায়গায় সিটির খেলোয়াড় ফাউল করলে) আমরা থাকলে বের করে (লাল কার্ড) দেওয়া হতো। কাজেই মিলনার দ্বিতীয় হলুদ কার্ড প্রাপ্য। আমি জানি রেফারির জন্য অ্যানফিল্ড কিংবা ওল্ড ট্রাফোর্ডে এটা (লাল কার্ড দেওয়া) সহজ নয়। ওখানে অনেক চাপ থাকে (রেফারির ওপর) এটা সবাই জানে।'

সিটির মতে রেফারিং নিয়ে অভিযোগ করেছেন লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপও। তার দাবি সিটির বিপদসীমায় মোহাম্মদ সালাহকে কয়েকবার ফাউল করা হলেও উপযুক্ত প্রতিকার পায়নি অল রেডরা। লিভারপুল কোচ বলেছেন, 'সবাই দেখেছে কী হয়েছে। সালাহকে কয়েকবার ফাউল করা হলেও কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।'

আসলে ফুটবল এমনই। রেফারিকে থাকতে হয় উভয় সংকটে। এক ম্যাচে রেফারিং করে দুই দলেরই কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে রেফারিকে। তবে যাই হোক শেষ পর্যন্ত এই ম্যাচের ফল তৃপ্ত করতে পেরেছে দুই দলকেই। গার্দিওলা যেমন বলেছেন, 'আমি প্রিমিয়ার লিগ ভালোবাসি। কি দুর্দান্ত একটা ‌ম্যাচ!' ক্লপের ভাষায়, 'ছেলেরা দারুণ খেলেছে। ম্যাচটা উপভোগ্য ছিল।'