advertisement
আপনি পড়ছেন

এই মৌসুমের শুরু থেকেই নিজেদের হারিয়ে খুঁজছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তবে রেড ডেভিলসরা ব্যর্থতার বৃত্তে ঘুরপাক খেলেও ব্যতিক্রম ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। দারুণ ছন্দে আছেন প্রাণভোমরা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। অথচ এমন একজনকে কিনা হাইভোল্টেজ ম্যাচে শুরুর একাদশে রাখা হলো না!

chelsea lost points over manuচেলসির মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে পুরো ম্যাচে কোণঠাসা হয়ে থাকল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

সাবেক কোচ ওলে গানার সুলশারের দেখানো পথেই যেন হাঁটলেন ভারপ্রাপ্ত কোচ রালফ রাঙনিক। চেলসির বিপক্ষে রোনালদোকে শুরুর একাদশে না দেখে অনেকেই বিস্মিত হয়েছেন। এর প্রভাব দেখা গেল ম্যাচে। চেলসির মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে পুরো ম্যাচে কোণঠাসা হয়ে থাকল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

চেলসি অবশ্য ছোট্ট একটা ভুল করেছে। সেটার খেসারত দিতে হয়েছে পয়েন্ট খুইয়ে। ম্যাচজুড়ে একচেটিয়া পারফর্ম করেও ছোট্ট ওই ভুলের কারণে জিততে পারেনি চেলসি। রোববার রাতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের জায়ান্ট দুই দলের লড়াইটা ড্র হলো ১-১ গোলে। ম্যাচের প্রথম প্রথম ভাগ কেটেছে নিষ্ফলা। দুটো গোলই দ্বিতীয়ার্ধের।

chelsea lost points over manu 01চেলসির মাঠ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে পুরো ম্যাচে কোণঠাসা হয়ে থাকল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

পরিচিত দর্শকদের সামনে ম্যাচের শুরু থেকে ইউনাইটেডের বিপদসীমায় একের পর এক আক্রমণ আছড়ে ফেললেও কাঙিক্ষত সাফল্য পায়নি চেলসি। পুরো ম্যাচে ২৪টি শট নিয়েছে পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটি। যার ছয়টিই ছিল লক্ষ্যে। বিপরীতে ম্যানইউ গোলের উদ্দেশ্যে শট নিয়েছে তিনটি। যার দুটি ছিল লক্ষ্যে। একটিতে এসেছে সাফল্য।

সেটা দ্বিতীয়ার্ধের পঞ্চম মিনিটে। গোলটিতে দায় আছে উয়েফার বর্ষসেরা ফুটবলার জর্জিনহো। মাঝমাঠে সহজ বলের নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারেননি ইতালিয়ান মিডফিল্ডার। পাকান তালগোল। তার কাছ থেকে বল কেড়ে নিয়ে ঝড়ের বেগে ছোটেন ম্যানইউর আক্রমণ বিভাগকে নেতৃত্ব দেওয়া জ্যাডন স্যানচো। এরপর চেলসি গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ইংলিশ তারকা।

গেল সপ্তাহে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে রেড ডেভিলসদের হয়ে প্রথম গোল করা স্যানচো কাল জালের নাগাল পেলেন পেলেন ইংলিশ লিগের। স্যানচো বল কেড়ে নেওয়ার সময় চেলসির ‘ইন-ফিল্ডে’ কোনো খেলোয়াড়ই ছিলেন না। বল পেয়ে সুযোগ কাজে লাগান বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের সাবেক তারকা। জর্জিনহো অবশ্য ওই ভুলের মাসুল দিয়েছেন ৬৯ মিনিটে।

পেনাল্টি থেকে করেন সমতাসূচক গোল। চেলসির প্রথম গোলের সুযোগ এসেছে বেশ কয়েকবারই। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই তাদের হতাশ করেন ম্যানইউ গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়া। দুর্ভাগ্যও সঙ্গী হয়েছে তাদের। ৩০ মিনিটে অ্যান্তনিও রুদিগারের শট ডি গিয়ার গ্লাভস ছুঁয়ে ক্রসবারে লাগে। সেই হতাশা কিছুটা হলেও দূর হয়েছে পেনাল্টি পাওয়ার পর।

ডি-বক্সে থিয়াগো সিলভাকে ফাউল করেন ম্যানইউ ডিফেন্ডার অ্যারন ওয়ান-বিসাকা। স্পট কিক থেকে গোল করে চেলসির পয়েন্ট বাঁচান সেই জর্জিনহোই। পয়েন্ট ভাগাভাগি করে দুই দল। এই ড্রয়ের পরও ১৩ ম্যাচে ৩০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে চেলসি। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে আটে ম্যানইউ। দুইয়ে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির সংগ্রহ ২৯ পয়েন্ট।

বিগ ম্যাচে অপেক্ষার প্রহর শেষ হয় ৬৩ মিনিটে। রোনালদোকে মাঠে নামান ম্যানইউর ভারপ্রাপ্ত কোচ। কিন্তু বদলি হিসেবে মাঠে নামা পর্তুগিজ তারকাকে খুঁজেই পাওয়া গেল না। গোলের মুহূর্তটা ছাড়া ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকেও পাওয়া গেল না পুরো ম্যাচে। আসলে ভাগ্যবশত পয়েন্ট পেয়েছে তারা। আর দারুণ খেলেও পয়েন্ট হারিয়েছে চেলসি। ব্লুজদের জন্য এটাকে হোঁচটই বলা যায়।

কাল রাতে ঘরের মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ওয়েস্টহাম ইউনাইটেডকে ২-১ গোলে হারিয়ে দুইয়ে উঠে এসেছে ম্যানচেস্টার সিটি। তিনে নেমে যাওয়া লিভারপুলের ঘরে আছে পয়েন্ট ২৮। চার ও পাঁচে থাকা ওয়েস্টহাম ও আর্সেনালের অর্জন সমান ২৩ পয়েন্ট। ২০ পয়েন্ট নিয়ে ছয়ে উলভারহ্যাম্পটন এবং ১৯ পয়েন্ট নিয়ে সাতে আছে টটেনহাম হটস্পার।