advertisement
আপনি পড়ছেন

শিরোপা প্রত্যাশী তারকাঠাসা পিএসজির স্বপ্ন গুঁড়িয়ে দিয়েছেন করিম বেনজেমা। শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগে করেন দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক। কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগেও জ্বলে উঠলেন ফরাসি স্ট্রাইকার। বুধবার রাতে করলেন টানা দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক। তাতেই উড়ে গেল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন চেলসি। বেনজেমার হ্যাটট্রিকের ওপর দাঁড়িয়ে চেলসিকে ৩-১ গোলে হারাল রিয়াল মাদ্রিদ।

karim benzema agsinst chelsea champions leagueবেনজেমার হ্যাটট্রিকে রিয়ালের প্রতিশোধ

দুর্দান্ত এই জয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেল রিয়াল মাদ্রিদ। ফিরতি লেগে অলৌকিক কিছু না ঘটলে বিদায় নিতে হবে চেলসির। পশ্চিম লন্ডনের ক্লাবটির জন্য আরো কঠিন তথ্য হচ্ছে, আগামী ১২ এপ্রিল দ্বিতীয় লেগটা তাদের খেলতে হবে রিয়াল মাদ্রিদের দুর্গ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে। ওই ম্যাচে এক গোলের ব্যবধানে হারলেও রিয়ালের সেমিফাইনালের পথ আটকাবে না।

গত মৌসুমে সেমিফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদকে কাঁদিয়ে ফাইনালে ওঠে চেলসি। টুর্নামেন্টে শেষ পর্যন্ত শিরোপা জেতে তারা। এবার রিয়ালের সঙ্গে একটু আগেভাগেই দেখা হলো ব্লুজদের। তবে সাক্ষাৎটা যখনই হোক শেষ আটের রাউন্ডটা দুই দলের জন্য ছিল পুরোনো হিসেব-নিকেশ চুকানোর। চেলসিকে বিধ্বস্ত করে রিয়ালের প্রতিশোধের রাস্তাটা পরিষ্কার করে দিলেন এই মৌসুমে স্বপ্নের ফর্মে থাকা বেনজেমা।

karim benzema agsinst chelsea champions league 1বেনজেমার হ্যাটট্রিকে রিয়ালের প্রতিশোধ

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ২১ মিনিটে চেলসির জালে বল জড়ান বেনজেমা। তিন মিনিটের ব্যবধানে পূরণ করেন ডাবলস। দুই গোল হজমের পর ঘুম ভাঙে স্বাগতিকদের। গোল শোধে মরিয়া হয়ে ওঠে তারা। ৪০ মিনিটে রিয়ালকে একটা গোলের শোধও দিয়েছিল চেলসি। ব্যবধান কমান জার্মান ফরওয়ার্ড কাই হাভার্টজ। চেলসির সেই গোলের আনন্দ মাটি হয়ে গেছে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই। হ্যাটট্রিক করে বসেন বেনজেমা।

তাতেই শেষ হয়ে গেল চেলসির ফেরার সম্ভাবনা। বাকি সময়ে দারুণ কিছু করতে পারেনি টমাস টুখেলের দল। তাই সহজ জয় নিয়েই মাদ্রিদে ফিরে গেল কার্লো আনচেলত্তির রিয়াল মাদ্রিদ। চেলসির এমন দুর্দশা ডেকে এনেছেন গোলরক্ষক এডোয়ার্ড মেন্ডি। তার ভুলেই দুই গোল করেছেন বেনজেমা। এই ভুলের মাসুল দেওয়া চেলসির পক্ষে কার্যত অসম্ভব। কারণ রিয়ালের মাঠে ফিরতি লেগে তাদের কঠিন পরীক্ষাই দিতে হবে।

বেনজেমা তিন গোলের দুটি করেছেন বলে মাথা ছুঁয়ে। তার দুই গোলের উৎস ভিনিচিয়াস জুনিয়র ও লুকা মডরিচ। তবে গোলে অবদান রাখতে না পারলেও দুর্দান্ত পারফর্ম করেছেন জার্মান মিডফিল্ডার টনি ক্রুস ও ব্রাজিলিয়ান অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার ক্যাসেমিরো। এক অর্থে এই চারজনই উড়িয়ে দিয়েছেন ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের। এবার দ্বিতীয় লেগে বাকি কাজটুকু সারার পালা তাদের।