advertisement
আপনি দেখছেন

কলকাতার বেনিয়াপুকুর-হরিদেবপুর লেক এলাকায় বিগত কয়েকমাসে ঘটেছে বেশকিছু ডাকাতির ঘটনা। ভারতীয় গোয়েন্দা বাহিনী মনে করছে, এই ডাকাতির পেছনে রয়েছে বাংলাদেশের ডাকাত গ্যাং। গোয়েন্দাদের পরামর্শে এবার তাই বাংলাদেশে আসছে কলকাতার পুলিশ।

kolkata police logo

ভারতীয় গণমাধ্যম জি-নিউজ ২৪ ঘণ্টা বলছে, ডাকাত ধরতে এবার বাংলাদেশ আসছে কলকাতা পুলিশ। কলকাতার গোয়েন্দা বিভাগের কৌশলি এক পুলিশ পরিদর্শকের নেতৃত্বে দুই-একদিনের মধ্যে আসছে পুলিশের একটি টিম। কলকাতা পুলিশ বলছে ডাকাতিগুলোর পেছনে নিশ্চিত ভাবেই রয়েছে বাংলাদেশি গ্যাং।

ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, সম্প্রতি সোনারপুরে একটি সোনার দোকানে ভয়াবহ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। বাসন্তীর ঢুঁড়ি নামক জায়গা থেকে গত সোমবার গ্রেপ্তার করা হয় খুন ও ডাকাতির প্রধান অভিযুক্ত লাবলু সর্দার। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে তার কাছ থেকে বাংলাদেশি গ্যাংদের জড়িত থাকার বিষয়টি বেরিয়ে আসে।

বলা হচ্ছে, গোল্ডলোন কোম্পানিতে হওয়া লুটের পেছনেও হাত রয়েছে বাংলাদেশি গ্যাংয়ের। সর্বশেষ বেনিয়া পুকুরে লুটের পর দলটি ফিরে যায় বাংলাদেশে। এই ডাকাত দলটি হরিদেবপুর এবং লেক এলাকার ডাকাতিতেও জড়িত। কলকাতা পুলিশ বলছে, গত কয়েকমাসের প্রায় সবগুলো ডাকাতির পেছনে রয়েছে বাংলাদেশি চক্র।

তবে তদম্তকারী কলকাতা পুলিশ টিম বাংলাদেশ পুলিশের সাহায্য নিয়েই তদন্ত করবে। এদিকে ডাকাতির প্রতিবাদে মঙ্গলবার সীমান্তবর্তী জেলা জুড়ে সোনার দোকান বন্ধের ধর্মঘটের ডাক দেয় স্বর্ণ ব্যবসায়ী সমিতি। এদিন শহরের অধিকাংশ সোনার দোকাই বন্ধ ছিল।