advertisement
আপনি পড়ছেন

ভারতে ধর্ষণের অভিযোগে আধ্যাত্মিক ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংকে দোষী সাব্যস্ত করে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বিতর্কিত এই ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে সামনে আরও কঠোর সাজার ঘোষণা আসতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।

gurmeet ram rahim

ধর্ষণের মামলার রায় পাওয়া গেলেও রাম রহিমের বিরুদ্ধে একাধিক হত্যা মামলার রায় প্রদান বাকি রয়েছে। সুতরাং ধারণা করা হচ্ছে, ওই মামলাগুলোর রায় পাওয়া গেলে এই ধর্মগুরু আরও কঠিন সাজা হবে।

একাধিক হত্যা মামলাগুলোর একটা হলো সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতি হত্যা-মামলা। ২০০২ সালে এই সাংবাদিক রাম রহিমের এক নারী শিষ্য ধর্ষণের খবর প্রকাশ করেছিলেন। এরপরই রাম রহিম তাঁকে খুন করান বলে ধারণা করা হয়।

এছাড়া রঞ্জিত সিং নামের এক ব্যক্তির হত্যা মামলাতেও নাম আছে রাম রহিমের। ডেরা ম্যানেজার ফকিরচাঁদের অন্তর্ধান নিয়েও অভিযোগের আঙুল ওঠেছে এই স্বঘোষিত ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে।

এর আগে গতকাল দুইটি ধর্ষণ মামলায় রাম রহিমকে ১০ বছর করে ২০ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন বিশেষ সিবিআই আদালত। প্রতিটি মামলার জন্য তাকে ধারাবাহিকভাবে ১০ বছর করে সাজা ভোগ করতে হবে। ফলে রাম রহিমকে ২০ বছর কারাগারে কাটাতে হবে।

একইসাথে বিতর্কিত এই ধর্মগুরুকে দুটি মামলায় ১৫ লাখ রুপি করে জরিমানা করা হয়েছে। নির্যাতনের শিকার দুই নারী ১৪ লাখ করে ক্ষতিপূরণ পাবেন।

উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালে নিজের আশ্রমে দুই নারীকে ধর্ষণ করেছেন বলে রাম রহিম সিংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়। এরপর এই ঘটনায় ২০০২ সালে সিবিআই এই ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করে। ২০০৭ সাল থেকে ওই মামলার শুনানি শুরু হয়। দীর্ঘদিন শুনানি চলার পর আদালত আজ ২৮ আগস্ট এই মামলায় রাম রহিম সিংকে দোষী সাব্যস্ত করে।