advertisement
আপনি পড়ছেন

একপাক্ষিক ভাবেই মিয়ানমারের রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের সংগঠন ‘আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি’ এক মাসের জন্য অস্ত্র বিরতির ঘোষণা দিয়েছে। রবিবার থেকে এই অস্ত্রবিরতি কার্যকর হবে। শনিবার এক বিবৃতির মাধ্যমে এই ঘোষণা দিয়েছে আরাকানের স্বাধীনতাকামী এই বিদ্রোহী সংগঠনটি।

ARSA

বিদ্রোহীদের বিবৃতির বরাত দিয়ে বিবিসি বলছে, ‘তারা রাখাইনে মানবিক সংকট বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একই সাথে তারা মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর প্রতিও অস্ত্রবিরতি পালন করার আহ্বান জানিয়েছে।

তবে এ বিষয়ে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী এখন পর্যন্ত কোন মন্তব্য করেনি। গত ২৫ অগাস্ট পুলিশের সাথে এই আরসার সহিংসতার প্রতিক্রিয়ায় ঢালাওভাবে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উপর নিপীড়ন শুরু করে বর্মিজ নিরাপত্তা বাহিনী।

নতুন করে চলমান এই সহিংসতার কারণে এখন পর্যন্ত ১০০০ জনেরও বেশি রোহিঙ্গা মারা গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুযায়ী ১ লক্ষ ৭৫ হাজারেরও বেশি মানুষ নিরাপত্তা বাহিনীর নির্যাতনের মুখে দেশ থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। আর ২৬০০ বেশি ঘর বাড়ি পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে বলেও জাতিসংঘের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।