advertisement
আপনি পড়ছেন

আমেরিকার বিরুদ্ধে কঠোর নীতি গ্রহণ করতে পারে পাকিস্তান। এক্ষেত্রে আমেরিকা যদি পাকিস্তানের উপর কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে কিংবা ঘনিষ্ঠ মিত্রদেশ হিসেবে পাকিস্তান এতদিন যে মর্যাদা পেয়ে আসছিল তা কমিয়ে দেয় তাহলে ওয়াশিংটনের বিরুদ্ধে কঠোর নীতি নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসলামাবাদ।

shahid khaqan abbasi 01

সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক ‘এক্সপ্রেস ট্রিবিউন’ এ খবর জানিয়েছে। পত্রিকাটি জানিয়েছে, পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় সরকার ‘কঠোর কূটনৈতিক নীতি’র ক্ষেত্রে তিনটি বিষয়ে প্রস্তুতি নিয়েছে। তা হলো- পর্যায়ক্রমে আমেরিকার সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক সীমিত করা, সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা কমানো এবং আফগানিস্তান বিষয়ে আমেরিকাকে সহযোগিতা প্রদান বন্ধ করে দেয়া।

সম্প্রতি, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আফগানিস্তান বিষয়ক নতুন নীতি ঘোষণা করে পাকিস্তানের সমালোচনা করেছেন এবং এই অঞ্চলে সন্ত্রাসবাদ ছড়াতে পাকিস্তানকে দায়ী করেছেন। তিনি পাকিস্তানকে সন্ত্রাসবাদের অভয়ারণ্য বলেও মন্তব্য করেন।

ট্রাম্পের ওই মন্তব্যের পর থেকেই পাকিস্তানে আমেরিকা বিরোধী জনমত বৃদ্ধি পেয়েছে এবং পাক সরকারের পক্ষ থেকেও তা প্রত্যাখান করা হয়েছে।

কঠোর নীতির মধ্যে আফগানিস্তান বিষয়ে আমেরিকাকে অসহযোগিতা প্রদান বিষয়ে জানানো হয়েছে, এতদিন ধরে ন্যাটো সেনারা তাদের অভিযান পরিচালনায় পাকিস্তানের স্থল পথ ব্যবহার করার যে সুবিধা ভোগ করছে, কঠোর নীতি গ্রহণ করলে সেই সুযোগ আর দেয়া হবে না। অর্থাৎ ন্যাটোকে পাকিস্তানের স্থল পথ ব্যবহার করতে দেয়া হবে না।