advertisement
আপনি পড়ছেন

মিয়ানমারের রাখাইন অঞ্চলের সংখ্যালঘু মুসলমানদের নির্যাতনের দায়ে দেশটির সঙ্গে সামরিক চুক্তিসহ সবধরনের সামরিক কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে যুক্তরাজ্য। একইসঙ্গে, রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধ না করা পর্যন্ত দুই দেশের মধ্যকার সবধরণের যৌথ সামরিক কার্যক্রম বন্ধ রাখা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে।

theresa may close to lose his power

সংবাদ সংস্থা আনাদলুর প্রতিবেদনে জানানো হয়, বুধবার জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে দেওয়া বক্তব্যে থেরেসা মে বলেন, ’মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর যা হচ্ছে তাতে আমরা খুবই উদ্বিগ্ন। রোহিঙ্গাদের ওপর সামরিক পদক্ষেপ বন্ধ করতেই হবে।’

তিনি বলেন, ‘আজ থেকে মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেয়াসহ সব কার্যক্রম বন্ধ রাখা হবে এবং এসব কার্যক্রম ততোদিন স্বাভাবিক হবে না, যতোদিন অব্দি তারা রোহিঙ্গা নির্যাতন না বন্ধ করে।'

গত বছর মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিতে ৪ লাখ ১২ হাজার ডলার ব্যয় করেছে যুক্তরাজ্য।

উল্লেখ্য, মিয়ানমার রোহিঙ্গা মুসলমানদের অবৈধ অভিবাসী মনে করে। গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে পুলিশের কমপক্ষে ৩০টি তল্লাশি চৌকি ও সেনাক্যাম্পে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা হামলায় চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে মিয়ানমার। এই হামলায় ১২ জন পুলিশ নিহত হন। এরপরই দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী ও রাখাইনের বৌদ্ধ ভিক্ষুরা ‘ক্লিয়ারেন্স অপারেশন’ শুরু করে। প্রাণ ভয়ে লাখ লাখ রোহিঙ্গা আশ্রয় নেয় বাংলাদেশে।