advertisement
আপনি পড়ছেন

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের উরি ঘাঁটিতে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার জেরে সামীন্তে মুখোমুখি অবস্থানে ইসলামাবাদ-দিল্লি। এই কারণে গত বছর ইসলামাবাদের সার্ক সম্মেলনও বয়কট করেছিল ভারত। প্রায় এক বছর পর সার্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক বসতে যাচ্ছে নিউইয়র্কে। অবধারিতভাবেই মুখোমুখি হবেন ভারত-পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, সুযোগ পেয়েই ইসলামাবাদকে চেপে ধরবে দিল্লি।

sushma swaraj indian foreign affair minister

নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের ফাঁকে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া তাৎপর্যপূর্ণ বৈঠকে উপস্থিত থাকছেন পাকিস্তানের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী খাজা আসিফ ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। জানা গেছে, বৈঠকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে আঞ্চলিক যোগাযোগ, নিরাপত্তা এবং বাণিজ্য নিয়ে সার্বিক আলোচনা হবে।

ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সামনাসামনি পেয়ে সুষমা স্বরাজ সন্ত্রাসবাদ ঠেকাতে পাকিস্তানের ইচ্ছাকৃত গাফিলতির বিষয়ে কথা বলবেন। ভারতের পক্ষ থেকে বলা হবে, কেন পাকিস্তান গত এক বছরে সীমান্তবর্তী পাঠানকোট কিংবা উরি কাণ্ডে অভিযুক্তদের শাস্তির ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেয়নি।

উরি ঘাঁটিতে ঘটে যাওয়া সন্ত্রাসী হামলার পরপরই ভারতের নেতৃত্বে সার্কের বেশিরভাগ দেশই পাকিস্তানকে একঘরে করতে চেয়েছিল বলে দাবি দিল্লির। তবে ভারতের পাশাপাশি বাংলাদেশ, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ সার্কের ‘সভাপতি দেশ’ নেপালকে চিঠিতে জানিয়েছিল পাকিস্তানের প্রত্যক্ষ মদতে দক্ষিণ এশিয়ায় সন্ত্রাসবাদের ডালপালা মেলছে। এ অবস্থায় সহযোগিতামূলক কোন বৈঠক সম্ভব নয়। 

মোদি সরকার চেয়েছিল আন্তর্জাতিকভাবে পাকিস্তানকে একঘরে করা। তবে ভারতীয় কূটনীতিকরা বলছেন, বিগত এক বছরে ভারত পাকিস্তানকে একঘরে করার তৎপরতা চালালেও কোন লাভ হয়নি। বরং চীনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বেড়েছে ইসলামাবাদের। চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর খোলা, সন্ত্রাসবাদী মাসুদ আজহারকে জঙ্গি তালিকার বাইরে রাখা মাথা ব্যাথার কারণ হয়েছে ভারতের জন্য।

এদিকে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচির পেছনে পাকিস্তানের হাত রয়েছে বলে গুঞ্জন তুলেছে ভারত। ভারত একাধিকবার পশ্চিমা বিশ্বকে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু পরীক্ষার সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পৃক্ততার কথা জানিয়েছে। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখপাত্র রভিশ কুমার বলেন, 'জাতিসংঘ অধিবেশনে উত্তর কোরিয়ার চলমান পরমাণু পরীক্ষার নিন্দা করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ।' 

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে ভারত প্রমাণ করতে চেয়েছে জঙ্গিবাদের সঙ্গে পাকিস্তানের ব্যাপক সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। আমেরিকা-জাপান-ভারতের ত্রিপাক্ষিক বৈঠকেও সুষমা বিষয়টি প্রতিষ্ঠিত করতে চেয়েছেন।