advertisement
আপনি পড়ছেন

ষোড়শ শতকের একটি গীর্জার ধ্বংসাবশেষের সন্ধান পাওয়া গেছে মেক্সিকোর একটি শহরে। এলাকাবাসী বর্ণনা অনুযায়ী, এটিকে ষোড়শ শতকের গির্জা মনে করা হলেও বিশেষজ্ঞগণ বলছে এটি আরো আগের সময়ের হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যা এতোকাল পানির নিচে ছিল।

charch maxico

আজ থেকে প্রায় ৪৯ বছর আগে মেক্সিকোর গ্রিজাল্ভা নদীতে নির্মাণ করা হয়েছিল একটি বাঁধ। এই বাঁধের কারণেই ৪৯ বছর পর এসে পার্শ্ববর্তী এলাকায় দেখা দিচ্ছে খড়া। ফলে শুকিয়ে গেছে এলাকার সকল খাল এবং নদী-নালা। আর এতেই ভেসে উঠেছে ষোড়শ শতাব্দীতে নির্মিত এই গীর্জার ধ্বংসাবশেষ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডমিনিকানদের তৈরি দ্য এপোসিট গীর্জাটি সেই ১৯৬৬ সাল থেকেই পানির নিচে আছে। নতুন আবিস্কার হওয়া এই গীর্জার উচ্চতা ১৫ মিটার হলেও এতে ছাদের কিছুই অবশিষ্ট নেই। দেয়ালেও জমে আছে ঘন শ্যাওলার স্তুপ।

এই অঞ্চলের মানুষ এই গীর্জাকে ঘিরেই তাদের ধর্মীয় উৎসব পালন করতো বলে জানিয়েছে নৃতত্ববিদগণ। এর আগে ২০০২ সালেও একবার দেখা গিয়েছিল গীর্জাটি। তবে তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয় নি। পরক্ষণেই তা তলিয়ে যায় পানির নিচে।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন 

‘গরু হত্যাকারীকে স্বয়ং মোদিও রক্ষা করতে পারবেন না’

সৌদিতে নতুন শ্রম আইন: শ্রমিকের কাছেই থাকবে পাসপোর্ট

ঝটিকা সফরে মস্কো গেলেন প্রেসিডেন্ট আসাদ