advertisement
আপনি দেখছেন

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে দুই বন্দুকধারীর হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪০ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ৪৮ জনের মতো। শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টায় জুমার নামাজের সময় হওয়া এ হামলায় দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন।

new zealand mosque attack

এছাড়া এই হামলার শিকার হতে পারতেন বাংলাদেশি ক্রিকেট টাইগাররাও। ভাগ্যের জোরে মসজিদে ঢোকার আগেই তারা হামলার কথা জানতে পেরে নিরাপদে সরে পড়তে পারেন।

ব্রেনটন ট্যারেন্ট নামে ২৮ বছর বয়সী এক অস্ট্রেলিয়ান-বংশোদ্ভূত শ্বেতাঙ্গ যুবক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লাইভে এসে মসজিদে হামলা চালায়। ১৭ মিনিট ধরে হামলার লাইভ ভিডিও প্রচারিত হয়।

ধারণা করা হচ্ছে, বন্দুকধারী হামলার আগে পুরো ঘটনাটি ভিডিও করার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। হয়তো তার মাথায় ভিডিও ক্যামেরা বসানো ছিল।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লাইভে দেখা যায়, স্বয়ংক্রিয় বন্দুক নিয়ে গাড়ি থেকে নেমে মসজিদের দিকে ছুটে যান। তারপর মসজিদের দরজা থেকেই মুসল্লিদের ওপর নির্বিচারে বৃষ্টির মতো গুলি ছুড়তে শুরু করেন। মসজিদের প্রতিটি কক্ষে ঘুরে ঘুরে গুলি করতে থাকেন এই হামলাকারী।

ঘটনার পর ক্রাইস্টচার্চের মেয়র লিয়ানে ডালজিয়েল স্থানীয়দের শহরের কেন্দ্রস্থল এড়িয়ে চলার আহ্বান জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে বাসিন্দাদের ঘর থেকে আপাতত বের না হবার জন্য সতর্ক করেছেন।