advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 57 মিনিট আগে

শুক্রবার, ১৫ মার্চ। নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে রচিত হলো ইতিহাসের কালো অধ্যায়। সংখ্যালঘু মুসলিমদের প্রার্থনাকেন্দ্র মসজিদে ঢুকে নৃশংসতা চালালো উগ্রবাদী অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত এক শেতাঙ্গ। ভিডিও গেম খেলার মতো আল নুর মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করতে আসা মুসল্লিদের ওপর স্বয়ংক্রিয় মেশিনগান দিয়ে নির্বিচার গুলি চালালো ঠাণ্ডা মাথার ওই খুনি। একের পর এক মুসলমান মসজিদের ফ্লোরে ঢলে পড়লেন।

brnton tarrata newzeland

সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৪৮ জন। যাদের বেশিরভাগেরই অবস্থা আশঙ্কাজনক।

নিউজিল্যান্ডের পুলিশ বলছে, হামলার সঙ্গে জড়িত থাকা সন্দেহে তারা এক নারীসহ চারজনকে আটক করেছে। তবে মূল হামলাকারী ব্রেনটন টারান্ট নাকি পরে নিহত হয়েছে। যদিও এ ব্যাপারে কোনো তথ্য-প্রমাণ এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

আল নুর মসজিদে স্বয়ংক্রিয় মেশিনগান দিয়ে হামলা চালিয়েছে ওই ব্রেনটন। শুধু হামলাই নয়, মাথায় থাকা ক্যামেরার মাধ্যমে অনলাইনে নৃশংস ১৭ মিনিটের সেই ঘটনা সরাসরি প্রচার করেছে সে।

সে যে একজন ডানপন্থী উগ্রবাদী সন্ত্রাসী মতাদর্শের ছিল তা স্বীকার করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। অস্ট্রেলিয়ার এ নাগরিক নিউজিল্যান্ডে থাকতো বলেও জানান তিনি।

বিবিসি বলছে, হামলার আগে ব্রেনটন অনলাইনে একটি অসংলগ্ন ডকুমেন্ট পোস্ট করেছে। যেখানে সে নিজেকে একজন ডানপন্থী সহিংসবাদী মতাদর্শের অনুসারী হিসেবে প্রকাশ করেছে।

অস্ট্রেলিয়ার স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, ব্রেনটনের জন্ম সিডনি থেকে ৬০০ কিলোমিটার উত্তরের গ্রাফটন শহরে। আগে সে একটি ফিটনেস ফ্যাসিলিটিতে কাজ করতো। তার সাবেক বস ট্র্যাসি গ্রে বলছেন, ‘সে কখনও সন্ত্রাসী মানসিকতা পোষণ করতো না কিংবা উগ্র ব্যবহার করেনি।’

বিবিসি বলছে, অনলাইনে পোস্ট করা ১৬ হাজার ৫০০ পৃষ্ঠার ডকুমেন্টে ব্রেনটন জানায়, ২০১৭ সালে ইউরোপ ভ্রমণের সময় কিছু ঘটনা তাকে ক্রোধান্বিত করে। এর পরই সে একটি হামলার পরিকল্পনা করতে থাকে।

বিশেষ করে, তার মতে, সুইডেনে ইসলামিক স্টেটের এক অনুসারীর লরি হামলা, মধ্যমপন্থী ইমানুয়েল ম্যাঁখোকে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করার সিদ্ধান্ত এবং দেশটিতে (ফ্রান্স) জাতিগত বৈচিত্র্যতা তাকে (ব্রেনটন) এই পরিকল্পনা (হামলা) করতে উৎসাহিত করে।

সে আরো স্বীকার করেছে যে, এই হামলা অব্যাহত রাখার ইচ্ছা আছে তার এবং তার আশা এর মাধ্যমে ভীতি ছড়াবে।

ওই ডকুমেন্টের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব পরিকল্পনার ধারাবাহিকতায় তিন মাস আগে আল নুর মসজিদকে হামলার টার্গেট করে ব্রেনটন।

sheikh mujib 2020