advertisement
আপনি দেখছেন

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরের আল নূর মসজিদে বন্দুকহাতে তাণ্ডব চালান ব্রেনটন ট্যারান্ট নামের এক উগ্রবাদী খ্রিস্টান। ভয়াবহ এই তাণ্ডবে প্রাণ হারান অন্তত ৫০ জন। ওই সন্ত্রাসী যখন এলোপাতাড়ি গুলি চালাচ্ছিলেন, তখনই তাকে জাপটে ধরে আটকানোর চেষ্টা করেন নঈম রশিদ নামের এক পাকিস্তানি নাগরিক।

naeem rashid pakistan

সেই অকুতোভয় পাকিস্তানি নাগরিক শনিবার দিবাগত রাতে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন।

বিশ্ব গণমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, শনিবার হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় মারা যান নঈম রশিদ। সেদিনই তার ছেলে তালহা রশিদও মারা যান। রশিদ মূলত পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদের বাসিন্দা। সেখানে তিনি একটি বেসরকারি ব্যাংকে চাকরি করতেন। পরে তিনি শিক্ষকতা করতে নিউজিল্যান্ডে পাড়ি জমান। নিজের জীবন বিপন্ন করে বন্দুকধারীকে থামানোয় বিশ্বব্যাপী বীর হিসেবে সম্মানিত করা হচ্ছে এই তরুণকে। 

আনন্দবাজার বলছে, শনিবার ভয়াবহ হামলায় বেঁচে যাওয়া ভারতীয় বংশোদ্ভূত ফয়জল সৈয়দ জানান, নঈম রশিদ হঠাৎ করে এসে ওই বন্দুকধারীকে জাপটে ধরেন। পরে বন্দুক না নামানো পর্যন্ত চেপে ধরেন। আমি বেঁচে আছি মূলত ওই মানুষটির জন্যই।

ঘটনাস্থলে ব্রেনটন নামে ওই বন্দুকধারীর গুলিতে মারাত্মক জখম হন নঈম। তবে তিনি ব্রেনটনের হাত থেকে বন্দুক কেড়ে নিতে পেরেছিলেন। কিন্তু বন্দুক চালাতে না পারায় ঘাতক গাড়িতে উঠে পড়েন।