আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 17 মিনিট আগে

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দু’টি মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় অর্ধশত নিহতের ঘটনায় ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক ডেকেছে তুরস্ক। দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়্যিপ এরদোয়ানের আহ্বানে মুসলিম দেশগুলোর শীর্ষ কূটনীতিকরা আগামী ২২ মার্চ ইস্তাম্বুলে এ বৈঠকে মিলিত হবেন।

oic may 2018

এ বৈঠকের ব্যাপারে রোববার পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমদু কুরেশি বলেন, ‘ইসলাম বিদ্বেষের লাগাম টানতে ওআইসির বৈঠক আহ্বান করা হয়েছে। এজন্য মুসলমানদের কৌশলগত করণীয় নির্ধারণ এবং ঐক্যবদ্ধ হবার লক্ষ্যে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।’

নিউজিল্যান্ড হামলার ঘটনায় ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্য করায় অস্ট্রেলিয়ার চরম ডানপন্থী এক সিনেটরের ওপর ডিম হামলা করেছে এক তরুণ। অন্যদিকে লন্ডনে ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্যকারীরা এক মুসলিমের ওপর হাতুড়ি হামলা চালিয়েছে। এছাড়া এ ঘটনায় বিভিন্ন দেশে মুসলিমবিরোধী বিভিন্ন গোষ্ঠী বিরূপ মন্তব্য করছে।

এ বিষয়ে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সবখানে ইসলামবিদ্বেষী গোষ্ঠী গড়ে উঠেছে। ধারাবাহিকভাবে এ সব চলতে পারে না। ওআইসির মাধ্যমে মুসলিম বিশ্ব একই কণ্ঠে আওয়াজ তুললে, তা অনেক শক্তিশালী ভূমিকা রাখবে।’

এর আগের দিন শনিবার এক নির্বাচনী সমাবেশে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেছেন, ‘নিউজিল্যান্ডে হামলাকারী তুরস্ককে লক্ষ্যবস্তু বানাতে চেয়েছিল। তুর্কিদের বিরুদ্ধে হুমকিও দিয়েছে।’ এ সময় তিনি সমবেতদের উদ্দেশে ওই হামলাকারীর ইসলামবিদ্বেষী ইশতেহারের ভিডিও এবং হামলার ফুটেজ দেখান।

এরদোয়ান হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘আমরা ক্রস (খ্রিষ্টান ধর্ম) এবং ক্রিসেন্টের (ইসলাম) মধ্যে আবারও একটি সঙ্ঘাত (ধর্মযুদ্ধ) চাই না।’ এ সময় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ইসলামবিদ্বেষের উত্থান রোধে ব্যবস্থা নেয়ারও আহ্বান জানান তিনি।