advertisement
আপনি দেখছেন

নিউজিল্যান্ডের স্ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে পৈশাচিক হামলা চালানো অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত অতি ডানপন্থী উগ্রবাদী সন্ত্রাসী ব্রেনটন টারান্ট ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েল সফর করেছিল। তিন মাসের টুরিস্ট ভিসায় ২০১৬ সালে সে ইসরায়েল যায় বলে খবরে বলা হচ্ছে।

brenton tarrant

গত ১৫ মার্চ শুক্রবার জুমার নামাজের সময় ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদ ও লিনউড মসজিদে ভয়াবহ ওই হামলার ঘটনা ঘটে। আল নুর মসজিদে নামাজরত মুসল্লিদের ওপর স্বয়ংক্রিয় মেশিনগান থেকে নির্বিচার গুলি চালায় টারান্ট। শুধু তাই নয়, নৃশংস সেই ঘটনা অনলাইনের মাধ্যমে সরাসরি প্রচার করে সে।

এর পর নিজেই গাড়ি চালিয়ে লিনউড মসজিদে গিয়ে হামলা চালায় সে। উভয় হামলায় এ পর্যন্ত অন্তত ৫০ জন নিহত এবং ৬০ জনের বেশি আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডনের খবরে বলা হয়েছে, সোমবার ইসরায়েলি কর্মকর্তারা টারান্টের সফরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ইসরায়েলের অভিবাসন কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র সাবিন হাদ্দাদের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের অক্টোবরে তিন মাসের টুরিস্ট ভিসায় ইসরায়েল যায় টারান্ট। কিন্তু সে ৯ দিন সেখানে অবস্থান করে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেননি ওই কর্মকর্তা।

এদিকে, অস্ট্রেলিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পিটার দুতন সোমবার বলেছেন, টারান্ট যদিও দেশটির গ্রাফটনে বড় হয়েছে, কিন্তু গত তিন বছরে মাত্র ৪৫ দিন সে অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থান করেছে।

এর আগে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোতে বলা হয়, টারান্ট হামলার আগ পর্যন্ত অন্তত ১০টি দেশ সফর করেছে। এর মধ্যে উত্তর কোরিয়া, ক্রোয়েশিয়া, পাকিস্তান, বুলগেরিয়া, গ্রিস ও তুরস্ক রয়েছে।

গত শুক্রবারের ওই হামলার পর টারান্টের বিরুদ্ধে একটি খুনের মামলা হয়েছে। তবে তার বিরুদ্ধে আরো একাধিক মামলা হবে বলে মনে করা হচ্ছে।