advertisement
আপনি দেখছেন

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার সময় যে ব্যক্তির বীরত্বপূর্ণ ও সাহসী পদক্ষেপে বহু মানুষের প্রাণ বেঁচে যায় সেই তিনি হলেন ইমাম আলাবী লতিফ। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি তার সেই বিভীষিকাময় অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন। এ সময় তিনি অঝোরে কাঁদছিলেন।

imam arabi latif

অস্ট্রেলিয়ার ডেইলি মেইলকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ইমাম আলাবী লতিফ বলেন, ‘বন্দুকধারী ব্রেনটন ট্যারেন্ট যখন লিনউড মসজিদের দিকে যাচ্ছিলো, তখন জানালা থেকে আমি তাকে দেখেছি। কিন্তু পুলিশের লোক ভেবে আমি দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি।’

তিনি বলেন, ‘এরপর যখন মসজিদের মেঝেতে একজন নারীকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখলাম, তখন আমি নিজের অজান্তেই ‘নো’ বলে চিৎকার করেছিলাম। এ সময় লোকদের দ্রুত নিচে নামার জন্য বলি আমি।’

তারপরও নিজের চোখের সামনে অনেকের মৃত্যু দেখার সেই স্মৃতিচারণের সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন ইমাম আলাবী লতিফ। এ সময় আশেপাশের লোকজন তাকে সান্ত্বনা দেন।

হামলার সময় ওই বন্দুকধারী কিছু একটা বলছিল উল্লেখ করে আলাবী লতিফ বলেন, ‘আমি তার কথা স্পষ্ট শুনতে পাইনি। তবে সে খুব ক্ষিপ্ত এবং ভয়াবহ কিছু করতে যাচ্ছে- এটা বুঝতে পেরেছিলাম। কিন্তু প্রথম দিকে মানুষ বিষয়টি বুঝতে পারেনি। কী ঘটতে যাচ্ছে, সবাই একটু পরে বুঝতে পেরেছে।’

ব্রিটিশ গণমাধ্যম মেট্রো বলছে, হামলার সময় লিনউড মসজিদে ঐতিহ্যবাহী মাওরি অনুষ্ঠান চলছিল। সেখানেই এই দুর্বিষহ পরিস্থিতির মুখোমুখি হন ইমাম আলাবী লতিফ। ঘটনার সময়ের একটি ছবিতে তার পরনের জামা রক্তে ভেজা দেখা গেছে।